সন্ত্রাসীরা সব বিমান ধ্বংস করতে চেয়েছিল

পাকিস্তানের করাচি বিমাবন্দরে হামলা চালিয়ে সেখানকার সব বিমান ধ্বংস সকরতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা। এমন রিপোর্ট তুলে ধরা হয়েছে পাক প্রধামন্ত্রী নওয়াজ শরীফের কাছে।

 রিপোর্টে বলা হয়েছে, সন্ত্রাসীরা দুটি জায়গা দিয়ে বিমানবন্দরে ঢোকে। হামলার জন্য এরইমধ্যে নিষিদ্ধঘোষিত তেহরিকে তালেবান পাকিস্তান বা টিটিপি দায় স্বীকার করেছে।

 এদিকে, প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের বিমান চলাচল বিষয়ক বিশেষ সহকারী সুজ্জাত আজিম বলেছেন, করাচি বিমানবন্দরের স্বাভাবিক কার্যক্রম বেলা ৪টার দিকে শুরু হবে। দেশের সব বিমানবন্দরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

 এর আগে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিমানবন্দর খুলে দেয়ার জন্য কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ। একইসঙ্গে বিমাবন্দরে আটকে পড়া যাত্রীদের সব ধরনের সুবিধা দেয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

 গতকালের হামলায় করাচি বিমানবন্দরের ১৫ থেকে ২০টি ফ্লাইট বাধাগ্রস্ত হয়েছে। এগুলো আজ সন্ধ্যার মধ্যে রিশিডউল করা হবে। পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক এক্সপ্রেস ট্রিবিউন বলেছে, গতকালের হামলায় মারা গেছে ২৮ জন। এর মধ্যে ১২ জন সন্ত্রাসী রয়েছে।

You Might Also Like