২০১৪-১৫ অর্থবছরেও কালো টাকা সাদা করার সুযোগ থাকছে

আগামী ২০১৪-১৫ অর্থবছরের বাজেটে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ থাকছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। এর আগে গত ৮ মে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পরামর্শক কমিটির ৩৫তম সভায় অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, “বাজেটে কালো টাকা বিনিয়োগের অনেক সুযোগ দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। এবারের বাজেট থেকে কালো টাকা বিনিয়োগের আর কোনো সুযোগ দেয়া হবে না।”

আজ ৮ম বারের মতো বাজেট পেশ করতে যাওয়ার আগে একটি জাতীয় দৈনিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে অর্থমন্ত্রী তার আগের বক্তব্য থেকে সরে এলেন।
মুহিত জানান, “আগামী অর্থবছরেও কালো টাকা সাদা করার সুযোগ থাকছে। ফ্ল্যাট কেনায় এলাকাভেদে নির্ধারিত পরিমাণ কর দিয়ে কালো টাকা সাদা করার যে সুযোগ চলতি অর্থবছরে ছিল, আগামী অর্থবছরেও তা বহাল থাকছে।”

তিনি আরও বলেন, “আয়কর আইন অনুযায়ী যে কেউ জরিমানা দিয়ে প্রদর্শিত অর্থ সাদা করতে পারেন। ২০১২-১৩ অর্থবছরের বাজেটে আয়কর অধ্যাদেশে ১৯ই নামে একটি ধারা সংযোজন করে অপ্রদর্শিত আয় ঘোষণা দেওয়ার স্থায়ী সুযোগটিও আগামী অর্থবছরের বাজেটে থাকছে।”

সপ্তাহখানেক আগে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) আসন্ন বাজেটে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ না রাখতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। তারা বলেছে, এ ধরনের সুযোগ সততাকে নিরুৎসাহিত করার পাশাপাশি সরকারকে দুর্নীতির সংরক্ষক ও সহায়ক হিসেবে উপস্থাপিত করে।

কালো টাকা সাদা করার সুযোগ রাখাকে অনৈতিক আখ্যা দিয়ে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “এ সুযোগ কার্যত অনিয়ম ও দুর্নীতিকে পুরষ্কৃত এবং সততাকে নিরুৎসাহিত করে। এটি একই সাথে সরকারকে দুর্নীতির সংরক্ষক ও সহায়ক হিসেবে উপস্থাপিত করে।”

You Might Also Like