এস-৪০০ কেনার প্রয়োজন দেখছি না: জেনারেল দেহকান

ইরান নিজস্ব প্রযুক্তিতে তিন ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নির্মাণ করছে বলে জানিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হোসেইন দেহকান। তিনি আরো বলেছেন, দূরপাল্লার প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার ক্ষেত্রে কিছু ঘাটতি থাকায় ইরান রাশিয়ায় নির্মিত এস-৩০০ ব্যবস্থা কিনেছে। কিন্তু সে প্রয়োজন মিটে যাওয়ায় এস-৪০০ কেনার কোনো প্রয়োজন তেহরানের নেই।

জেনারেল দেহকান তেহরানে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান। আকাশ প্রতিরক্ষা শিল্পে ইরানের অর্জন সংক্রান্ত এক প্রশ্নের উত্তরে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা সম্পূর্ণ নিজস্ব প্রযুক্তিতে মহাকাশে কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাতে পেরেছি যা দিয়ে ভূপৃষ্ঠ থেকে ৫০০ কিলোমিটার উচ্চতার সব তৎপরতা পর্যবেক্ষণ করা যায়।

সংবাদ সম্মেলনে সিরিয়া ও ইরাকে উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসআইএল বা দায়েশ বিরোধী যুদ্ধ সম্পর্কেও কথা বলেন জেনারেল দেহকান। তিনি বলেন, একদল উগ্র ধর্মান্ধ লোককে সিরিয়ায় জড়ো করে দায়েশ নামক জঙ্গি গোষ্ঠী গঠন করা হয়। এই গোষ্ঠী গঠনের উদ্দেশ্য ছিল ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ইসরাইল নামক অবৈধ রাষ্ট্রের মতো সিরিয়ায় একটি অবৈধ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা।

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে ইসরাইল ও আমেরিকার স্বার্থ রক্ষার স্থায়ী ঘাঁটি হিসেবে দায়েশ পরিচালিত রাষ্ট্রকে ব্যবহার করতে চেয়েছিল সাম্রাজ্যবাদী ও ইহুদিবাদীরা। কিন্তু এই উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠী নিজেদেরকে সিরিয়া ও ইরাকে সীমাবদ্ধ না রেখে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে যে কারণে খোদ পশ্চিমারাই এখন এ গোষ্ঠীকে নির্মূলের চিন্তাভাবনা শুরু করেছে।

জেনারেল দেহকান বলেন, অবশ্য আমেরিকা এক্ষেত্রে শুধু প্রচারণার ঝড় তুলেছে; বাস্তবে দায়েশ বিরোধী কোনো পদক্ষেপই নেয়নি। এই উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠীকে নির্মূলের জন্য প্রথম পদক্ষেপ নিয়েছে ইরান এবং এরপর তাতে যোগ দিয়েছে রাশিয়া।

You Might Also Like