সমৃদ্ধ বিশ্ব গড়তে সকল বাধা বিপত্তি পার করে নারীদেরকে এগিয়ে যেতে হবে

সেলিম হোসেন, ভয়েস অব আমেরিকা : টেকসই উন্নয়নে নান বাধা বিপত্তি এড়িয়ে নারীরা কিভাবে ভূমিকা রাখতে সে বিষয়ক এক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয় ওয়াশিংটন ডিসির উইলসন সেন্টারে। প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল ইউএসএ ও উইলসন সেন্টারের যৌথ আয়োজনে; এতে বক্তারা বলেন, ভবিষ্যতের সমৃদ্ধ বিশ্ব গড়তে সকল বাধা বিপত্তি পার করে নারীদেরকে এগিয়ে যেতে হবে।
সমৃদ্ধ বিশ্ব গড়তে সকল বাধা বিপত্তি পার করে নারীদেরকে এগিয়ে যেতে হবে টেকসই উন্নয়নে নারীদের ভূমিকা নিশ্চিত করতে হলে; প্রয়োজন অংশীদারিত্ব। জাতি ধর্ম বর্ণ লিঙ্গ নির্বিশেষে সরকারী বেসরকারী সকল পর্যায় থেকে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে সমাজ সংসার শিক্ষা ও সকল পেশায় নারীর উন্নয় ক্ষমতায়নের মাধ্যমে তা করা সম্ভব। ৯ই আগষ্ট ওয়াশিংটন ডিসির গবেষণা প্রতিষ্ঠান উইলসন সেন্টারে টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জনে নারীর ভূমিকা শীর্ষক আলোচনায় এসব মন্তব্য করেন বক্তারা।
প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল ইউএসএর ভাইস প্রেসিডেন্ট এ্যান হাডকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তারা সহস্রাব্ধ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় নারীর অংশগ্রহনের আলোকে কিভাবে নানা বাধা বিপত্তি পার করে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব সেসব নিয়ে কথা বলেন।
বাংলাদেশের নারীদেরকে দৃঢ় মনোবলের উল্লেখ করে এ্যান হাডক বলেন;
“আামি যাদের সঙ্গে কাজ করেছি তার মধ্যে বাংলাদেশের নারীরা মানষিকভাবে প্রচন্ড শক্তিশালী। সুযোগ দিলে তারা নিজেরাই নিজেদের ভাগ্যন্নয়ন করতে পারে। দেখেছি তরুনীরা কম বয়সী নারীরা সেসব সুযোগ নিচ্ছে এবং উন্নয়নে অবদান রাখছে”।
অনুষ্ঠানের প্যানেলিষ্ট ডি সুজাকে বাংলাদেশের নারীদের সম্পর্কে প্রশ্ন করলে বলেন তাদের মধ্যে প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে,
“আমি মনে করি বাংলাদেশের নারীরা সম্ভাবনাময়। সামগ্রিক উন্নয়ন এবং জলবায়ু পরিবর্তন রোধ বিষয়ে তারা গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখছেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে আমি বহু নারীর সঙ্গে কথা বলেছি যারা উন্নয়ন প্রয়াসের সঙ্গে কাজ করছেন। ঐসব নারীদের অনেকেই দুর্যোগ মোকাবেলায় নেতৃতাত্বের ভূমিকায় রয়েছেন”।
অনুষ্ঠানে কথা হয় ওয়াশিংটন প্রবাসী বাংলাদেশী আমেরিকান তরুন নারী উদ্যোক্তা লিফট আপ এশিয়ার প্রসিডেন্ট এবং ই্উএস চেম্বার অব কমার্স ফাউন্ডেশনের পরিচালক শামারুখ মহিউদ্দনের সঙ্গে।
বাল্য বিবাহ রোধ ও বানিজ্যিক খাত সহ অন্যান্য খাতে বাংলাদেশর নারীদের উন্নয়ন আরো দ্রুত করতে কি করা যায় সে প্রশ্নে কথা বলেন বলেন শামারুখ মহিউদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিশ্বের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা নারী উন্নয়ন নিয়ে কর্মরত ২৬ জন নারী অংশ নেন। কথা হয় তাদের কয়েজনের সঙ্গে।
নাইজেরিয়া উদুকা বাংলাদেশের নারীদের সম্পর্কে বলেন, “বাংলাদেশী নারীরা দয়া করে কোনো কাজের জন্যে পুরুষের মুখের দিকে চেয়ে থাকবেন না। নিজেই করে ফেলুন”।
ভারত থেকে আসা নারী মেঘা সেসাই বলেন, “পরিবার সমাজ সংসার গড়ার প্রধান ভূমিকই হচ্ছে নারীদের। এজন্যই সবার আগে দরকার নারীর উন্নয়ন”।
ভিওএ’র সৌজন্যে

You Might Also Like