শক্তিশালী আক্রমণভাগই বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার মূল ভরসা

শক্তিশালী আক্রমণভাগই বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার মূল ভরসা হতে চলেছে। ফরওয়ার্ড হিসেবে বার্সেলোনা স্টার লিওনেল মেসি, নাপোলির গঞ্জালো হিগুয়েইন ও ম্যানসিটির আগুয়েরোদের সামলাতে হিমশিম খেতে হবে বাঘা-বাঘা ডিফেন্ডারদেরও।

তার উপর এই মৌসুমে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন রিয়াল মাদ্রিদ উইঙ্গার ডি মারিয়া। প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডাররা মেসি-হিগুইনদের বোতল বন্দী করতে পারলেও ডি মারিয়াকে আটকাতে নিশ্চিতভাবে অনেক ভুগতে হবে। মারিয়ার তীব্র গতি, দারুণ ড্রিবলিং স্কিল, ডিফেন্স চেরা পাস, সঠিক নিশানায় ক্রসের কারণে বদল হয়ে যেতে পারে ম্যাচের চেহারা। তাই এবারের বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষের ডিফেন্স গুঁড়িয়ে দিতে এক ডি মারিয়াই হতে পারে আর্জেন্টিনার মূল অস্ত্র।

রিয়ালের বহুল প্রতীক্ষিত ডেসিমা জয়ে অনন্য অবদান ছিল মারিয়ার। লা লিগাতে তার প্রিয় পজিশন রাইট উইং ছেড়ে দেন দলে নতুন আশা গ্যারেথ বেলকে। তারপরও নিজের পজিশন ছেড়েও লুকা মডরিচকে সাথে নিয়ে মিডফিল্ডে দারুণ খেলেছেন তিনি। মারিয়ার পাস থেকেই রিয়াল সতীর্থরা করেছেন ১৭ গোল। কোপা ডেল রের ফাইনালেও বার্সেলোনার বিপক্ষে করেছিলেন স্মরণীয় এক গোল করেছিলেন তিনি।

অ্যাটলেটিকো ডিফেন্ডারদের নাচিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে বেলের গোলটি অবদান রেখেছিলেন তিনি। পুরো ম্যাচেই অসাধারণ খেলে জিতে নেন ম্যাচ সেরার পুরস্কারও।

আর্জেন্টাইন কোচ আলেসান্দ্রো সাবেলা তাই মারিয়াকে নিয়ে আলাদাভাবে ভাবতেই পারেন।মারিয়া বন্দনায় মেতেছেন আরেক আর্জেন্টাইন ডিয়েগো মিলিতোও। তিনি মারিয়ার প্রশংসা করে বলেন, ‘গোল করানোতে মারিয়া দারুণ দক্ষ। অসাধারণ খেলা উপহার দিয়ে রিয়াল মাদ্রিদের চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতায় ভূমিকা রেখেছে। আশা করছি, বিশ্বকাপেও তাকে এভাবেই দেখা যাবে।’

মিলিতোর মত আর্জেন্টিনার সমর্থকরাও এখন বিশ্বকাপে ভাল কিছুর প্রত্যাশায়। আর তাদের প্রত্যাশা পারদ আরও একটু উপরে তুলে দিয়েছেন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ডি মারিয়া।

You Might Also Like