গুলশানে সন্ত্রাসী হামলার মাসপূর্তিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জঙ্গিবিরোধী মানববন্ধন

রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার মাসপূর্তিতে ঢাকাসহ দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গিবাদবিরোধী মানববন্ধন হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আজ (সোমবার) বেলা ১১টা থেকে ১২টা এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে দেশের সরকারি-বেসরকারি মোট ১৩৪টি বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের এক হাজার ৩০০ মাদ্রাসা এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত দুই হাজার ১০০ কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারিরা অংশ নেন।

ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সন্ত্রাসবিরোধী বিভিন্ন ব্যানার নিয়ে অবস্থান নেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তি ও গণতন্ত্র তোরণ থেকে রাজু ভাস্কর্য পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। এছাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, মিরপুর, ধানমন্ডি, উত্তরা, বনানীসহ ঢাকার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সামনে এ কর্মসূচিতে অংশ নেন হাজার হাজার শিক্ষার্থী।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে কর্মসূচিতে অংশ নেন- শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হারুনুর রশিদ প্রমুখ।

এছাড়া জাহাঙ্গীরনগর, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, জগন্নাথ ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের নানা প্রান্তের উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কর্মসূচি পালন করেন।

গতকাল রোববার বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান ড. আবদুল মান্নান এ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেন। সব বিশ্ববিদ্যালয়কে এই কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, “গত ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলা হয়েছে। অতপর কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ার ঈদের ময়দানের কাছে এর পুনরাবৃত্তি ঘটেছে। এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ও অনভিপ্রেত ঘটনার মাধ্যমে যাতে জাতীয় স্থিতিশীলতা বিনষ্ট করতে কোনো মহল আর কোনো অপপ্রয়াস চালাতে না পারে, সে বিষয়ে সকলের সচেতনতা একান্ত জরুরী।”

গত ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় বিদেশিসহ ২০ পণবন্দী ও দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ২২ জন নিহত হন। অভিযান চালাতে গিয়ে জঙ্গিদের গ্রেনেড হামলায় গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সালাউদ্দিন খান নিহত হন। রাতের বিভিন্ন সময় তিন বাংলাদেশিসহ ২০ পণবন্দীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে জঙ্গিরা।

You Might Also Like