মুস্তাফিজ, রুবেল, তাসকিন পেসারদের ‘রোল মডেল

‘মুস্তাফিজ, রুবেল ও তাসকিন বাংলাদেশের নিজস্ব রোল মডেল। তাদের বোলিং দেখে আগামী কয়েক বছর বাংলাদেশ আরও ভালোমানের পেসার পাবে।’-কথা গুলো বলছিলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন পেসার আকিব জাভেদ।

জাতীয় দল ও এইচপির পেসারদের নিয়ে এক সপ্তাহ কাজ করতে শুক্রবার ঢাকায় আসেন আকিব জাভেদ। শনিবার সকালে পেসারদের নিয়ে কাজ শুরু করেছেন পাকিস্তানি প্রাক্তন ক্রিকেটার। ২৫ পেসার আকিব জাভেদের সঙ্গে কাজ করছেন।

পাকিস্তানকে বলা হয় পেস বোলারদের ‘পাওয়ার হাউস’। ইমরান খান, ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনুস, আকিব জাভেদ, ফজল মাহমুদ, সরফরাজ নেওয়াজ, শোয়েব আক্তার পাকিস্তান ক্রিকেট দলের পেস অ্যাটাক দীর্ঘদিন নেতৃত্ব দিয়েছেন।

তাদের উত্তরসূরী হিসেবে এসেছেন উমর গুল, মোহাম্মদ সামি, মোহাম্মদ আসিফ, মোহাম্মদ আমিররা। জাতীয় দলের হয়ে এখনও খেলে যাচ্ছেন তারা। অবশ্য ফিক্সিং কেলেংকারিতে জড়িয়ে আসিফ এখনও জাতীয় দলের বাইরে। ইমরান খানকে দেখে বড় হয়েছেন এদের অনেক পেসারই। এরপর ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনুস এসেছেন। তাদের ‘গুরু’ মেনে অনেকে ক্রিকেটার হয়েছেন, পেসার হতে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন।

আকিব জাভেদ সে কথাই বললেন, ‘ইমরান খান যখন পাকিস্তানের ক্রিকেটে যুক্ত হলেন এরপর আমাদেরকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। তিনিই ছিলেন আমাদের ‘রোল মডেল’।

কোনো ‘রোল মডেল’ না থাকায় বাংলাদেশ ভালোমানের পেসার পায়নি বলে মনে করেন আকিব জাভেদ। তার ভাষ্য, ‘আমি মনে করি ‘রোল মডেলের’ অভাবে বাংলাদেশ পূর্বে ভালোমানের পেসার পায়নি। আপনি যখন তরুণদের বাংলাদেশি পেসারদের ভিডিও দেখাবেন তখন সে পেসার হতে অনুপ্রাণিত হবে। ওই পেসার যদি ১৪৫ গতিতে বল করে তখন সে ওই গতিতে বোলিং করার স্বপ্ন দেখবে। পূর্বে এটা বাংলাদেশের ক্রিকেটে ছিল না। এখন হয়েছে। মুস্তাফিজ, তাসকিন, রুবেলেদের বোলিংয়ে তরুণরা অনুপ্রাণিত হবে। তারা বুঝাতে সক্ষম হয়েছে যে আমরাও ফাস্ট বোলিং করতে পারি। তাদের সেই আত্মবিশ্বাস আছে।’

আকিব জাভেদ আরও বলেন,‘আমি মনে করি বাংলাদেশের পথ চলা শুরু হয়েছে। ধীরে ধীরে এর পরিমাণ আরও বেড়ে যাবে।’

You Might Also Like