হজ্ব কোটা নিয়ে সৌদি আরবকে সতর্ক করল ইরান

ইরানের হজ্ব কোটা অন্য কোনো দেশকে দিয়ে দেয়ার ব্যাপারে সৌদি আরবকে সতর্ক করে দিয়েছে তেহরান। ইরানের হজ্ব ও জিয়ারত সংস্থার প্রধান সাঈদ ওহাদি এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করে বলেছেন, ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি বিশ্বের দেশগুলোর হজ্ব কোটা নির্ধারণ করে দিয়েছে। কাজেই এক দেশের কোটা আরেক দেশকে দিয়ে দেয়ার ক্ষমতা রিয়াদের নেই।

২০১৫ সালের হজ্বে সৌদি অব্যবস্থাপনার কারণে মিনায় সারাবিশ্বের হাজার হাজার হজ্বযাত্রী নিহত হন। এদের মধ্যে শুধুমাত্র ইরানেরই হাজি ছিলেন তিন হাজারের বেশি। ওই মর্মান্তিক ঘটনার জের ধরে চলতি বছর ইরানি হাজিদের জীবনের নিরাপত্তা দেয়ার দাবি জানায় তেহরান। কিন্তু সৌদি কর্তৃপক্ষ দে দাবি পূরণে অস্বীকৃতি জানালে এ বছর হজ্বে কোনো লোক না পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় ইরান।

এ অবস্থায় সৌদি আরব ইরানের হজ্ব কোটা পাকিস্তানকে দিয়ে দিতে পারে বলে কোনো কোনো গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর ওহাদি এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করলেন। অবশ্য পাকিস্তানের ধর্মমন্ত্রী সরদার মুহাম্মাদ ইউসুফ ইরানি হজ্ব কোটা গ্রহণের খবর নাকচ করে দিয়ে বলেছেন, তার দেশ সৌদি আরবের কাছ থেকে ইরানি কোটা গ্রহণের আবেদন জানায়নি। তবে রিয়াদ যদি স্বেচ্ছায় ইরানের কোটা পাকিস্তানকে দিয়ে দেয় তাহলে ইসলামাবাদ তাকে স্বাগত জানাবে বলে তিনি জানান।

এ সম্পর্কে সাঈদ ওহাদি আজ (রোববার) তেহরানে আরো বলেছেন, ওআইসি’র নির্ধারিত কোটা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় সংখ্যায় হজ্বে যাওয়ার ন্যায়সঙ্গত অধিকার ইরানি জনগণের রয়েছে। আগামী বছরের হজ্ব মৌসুমে ইরান যাতে তার নির্ধারিত কোটা ব্যবহার করতে পারে রিয়াদকে সে ব্যবস্থা করতে হবে।#

You Might Also Like