গুলেনের আন্দোলনকে ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী’ বললেন এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান বলেছেন, আমেরিকায় স্বেচ্ছা নির্বাসিত তুর্কি বিরোধী নেতা ফতেহউল্লাহ গুলেনের সঙ্গে সম্পর্কিত আন্দোলনকে আরেকটি বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে দেখা হবে। গত শুক্রবার এরদোগান সরকারের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থান প্রচেষ্টাকে কেন্দ্র করে এ ঘোষণা দেয়া হলো।
turkey
বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে এ ঘোষণা দেন এরদোগান। তিনি বলেন, তারা যেই হোক না কেনো তাদের বিরুদ্ধে তুর্কি সরকার লড়াই অব্যাহত রাখবে। এ সব ব্যক্তি তুরস্কের রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলোতে অনুপ্রবেশ করেছে এবং রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে তারা বিদ্রোহ করেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

গুলেনের নেতৃত্বাধীন আন্দোলনকে তুরস্কের নিষিদ্ধ ঘোষিত কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টি বা পিকেকে’এর সঙ্গে তুলনা করেন তিনি। গুলেনের আন্দোলনকে ক্যান্সার হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলে, নির্মূল করা না হলে তা প্রাণঘাতী রূপ নিবে।

সর্বোচ্চ হারে সফলতার জন্য যা কিছু করা দরকার হবে তুর্কি সরকার তাই করবে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, আইনে যা কিছু করার অনুমোদন দেয়া হয় বা সমর্থন করে তার সবই করা হবে।

গুলেনপন্থিদের বিদ্রোহে জড়িয়ে পড়ার মতো পরিস্থিতি দেখা দিতে পারে তা কখনোই কল্পনা করা যায় নি বলে জানান তিনি। গুলেনপন্থিদের তিনি তার ভাষায় বিশ্বাসঘাতক বলে অভিহিত করেন। তিনি দাবি করেন, সব সময়ই তারা দু’মুখো চরিত্রের ছিল এবং এবারে তাদের সত্যিকার স্বরূপ বের হয়ে এসেছে।

অবশ্য গুলেন তুর্কি ব্যর্থ অভ্যুত্থানে জড়িত থাকার কথা পরিষ্কার ভাষায় অস্বীকার করেছেন। অভ্যুত্থান প্রচেষ্টাকে তুর্কি সরকারের সাজানো নাটক হিসেবে দাবি করে গুলান বলেছেন, বিরোধীদের নির্মূল করার লক্ষ্যে হয়ত এটি করা হয়েছে।

You Might Also Like