রজনীকান্তের সেরা দশ সিনেমা

শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে ভারতের দক্ষিণী সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেতা রজনীকান্ত অভিনীত সিনেমা কাবালি। পিএ রণজিথ পরিচালিত সিনেমাটি এরই মধ্যে বিপুল সাড়া ফেলেছে রজনীকান্ত ভক্তদের মধ্যে।

এ অভিনেতার আগের দুই সিনেমা লিঙ্গা এবং কোচারাইয়ান ভক্তদের মধ্যে সাড়া ফেলতে ব্যর্থ হয়েছিল। তবে সেই দিক থেকে কাবালি মুক্তি আগেই হিট। এরই মধ্যে সকল অগ্রীম টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। ভক্তদের মধ্যে সিনেমা নিয়ে উন্মদনার শেষ নেই।

১৯৭৫ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত তামিল সিনেমা ‘অপূর্ব রাগাঙ্গাল’-এ অভিনয়ের মধ্য দিয়ে সিনেমায় তার অভিষেক হয়। কাবালি রজনীকান্তের ১৫৯তম সিনেমা। সিনেমায় তাকে দেখা যাবে গ্যাংস্টার চরিত্রে। এ চরিত্রে রজনীকান্ত কতটা সফল হবেন সেটা সময় হলেই জানা যাবে। কিন্তু এর আগে সিনেমার তার অভিনয়ের জন্য প্রশংসা পেয়েছেন তার এমন ১০টি চরিত্র নিয়ে আমাদের আজকের প্রতিবেদন।

মুন্দ্রু মুদিচু” (১৯৭৬) : খল চরিত্রে একজন কতটা দক্ষ হতে পারে সিনেমায় রজনীকান্তের চরিত্রটি তার উদাহরণ। সিনেমার তার চরিত্রটির নাম প্রশান্ত। রজনীকান্ত ছাড়াও এ সিনেমায় অভিনয় করেছেন শ্রদেবী এবং কমল হাসান। সিনেমার গল্পে দেখা যায় প্রশান্ত এবং বালাজি (কমল হাসান) দুজন রুমমেট। তারা দুজনই ভালোবাসে সেলভিকে (শ্রীদেবী)। প্রশান্ত, বালাজি এবং সেলভি একদিন পিকনিকে যায়। সেখানে লেকের মাঝখানে নৌকা নিয়ে ঘুরতে গিয়ে বালাজি লেকের পানিতে পরে যায় সাঁতার জানা সত্বেও প্রশান্ত তাকে বাঁচায় না। সেলভিকে নিজের বাড়িতে কাজের জন্য নিয়ে আসে প্রশান্ত। পরবর্তীতে প্রশান্তের বাবাকে বিয়ে করে বদলা নেয় সেলভি। সিনেমায় এক হাতে রজনীকান্তের সিগারেট ছুঁড়ে দেওয়া সকলের নজর কাড়ে।

বিল্লা (১৯৮০) : কাবালি সিনেমায় কয়েক দশক আগের ডন চরিত্রে ফিরছেন রজনীকান্ত। ১৯৭৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত অমিতাভ বচ্চনের ‘ডন’ সিনেমার রিমেক ‘বিল্লা’ তে গ্যায়স্টার চরিত্রে দেখা গিয়েছিল রজনীকান্তকে। অমিতাভের মতো তিনিও সিনেমার তার অভিনয়ের জন্য ভূয়সী প্রশংসা পেয়েছিলেন। কাবালি সিনেমার প্রোমোতে সেই চরিত্রটিতেই ফিরে আসার আভাস দিয়েছেন রজনীকান্ত।

চালবাজ (১৯৮৯) : সিনেমায় রজনীকান্তের চরিত্রটির নাম ছিল জাগ্গু। এতে জমজ দুই বোন আঞ্জু এবং মঞ্জু চরিত্রে অভিনয় করেছেন শ্রীদেবী। সিনেমায় আঞ্জু এবং মঞ্জুর মাঝে পড়ে রজনীকান্তের হাস্যরসাত্মক সংলাপ এবং তার দক্ষিণী স্টাইল সকলের প্রশংসা পেয়েছিল।

থালাপাথি (১৯৯১) : মণি রত্নম পরিচালিত সিনেমাটিতে রজনীকান্তের চরিত্রটির নাম সূর্য। বিয়ের আগেই জন্ম হয় সূর্যর। জন্মের পর সূর্যর মা তাকে সমাজের কটু কথার ভয়ে ফেলে চলে যায়। এরপর সে বড় হয়ে মানুষের উপকারে নিজেকে নিয়োজিত করে। তিনি হয়ে ওঠেন গরীবের রবিনহুড। এরপর সৎ ভাইয়ের সঙ্গে তার দ্বন্দ্ব। এর মধ্যে দিয়েই এগিয়ে চলে গল্প।

আন্নামালাই (১৯৯২) : একজন গরীব দুধ বিক্রেতা থেকে ধনী হয়ে ওঠা এবং অহংকারী বন্ধুর বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেওয়ার গল্প নিয়ে নির্মিত সিনেমা আন্নামালাই। ১৯৯৫ সালে ভাষা সিনেমাটি মুক্তির আগে এটিই ছিল রজনীকান্তের সবচেয়ে ব্যবসাসফল সিনেমা।

ভাষা (১৯৯৫) : মণিকাম একজন অটো ড্রাইভার। চেন্নাইয়ে সে তার পরিবার নিয়ে বাস করে। এভাবেই বাকি জীবন কাটানোর চিন্তা তার। কিন্তু হঠাৎ করে জানা যায় সে আসলে মু্ম্বোইয়ে কুখ্যাত গ্যাংস্টার মানিক ভাষা, যে নিজের মিথ্যা মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে দিয়ে জীবনভাবে জীবন শুরু করেছে। পরে পরিস্থিতির শিকার হয়ে আবার তার আগের রূপে ফিরতে হয় তাকে।

পারায়াপ্পা (১৯৯৯) : এই সিনেমায় তার অভিনয় দিয়ে অনেক ভক্ত জুটিয়েছেন রজনীকান্ত। একজন ইঞ্জিনিয়ার এবং তার পারিবারিক সমস্যা নিয়ে সিনেমাটির গল্প। সিনেমায় রজনীকান্ত ছিল অসাধারণ।

চন্দ্রমুখী (২০০৫) : এই সিনেমাটিতে রজনীকান্ত একজন সাইকিয়াট্রিস্ট। নিজের সৎ ভাই এবং তার স্ত্রীর জীবন রক্ষার জন্য সে নিজের জীবন বাজি রাখে। এ সিনেমা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে তৈরি হয়েছিল অক্ষয় কুমার অভিনীত সিনেমা ভোল ভুলাইয়া।

শিবাজী : দ্য বস (২০০৭) : রজনীকান্তের আরেকটি রবিন হুড ঘরানার চরিত্র শিবাজী। সমাজের বিত্তশালীদের কালো টাকা লুট করে তা গরীবের মাঝে বন্টন করা তার কাজ। সিনেমার পুরো অংশে রজনীকান্তের অভিনয় এবং স্টাইল দর্শকের মন জয় করে সক্ষম হয়েছিল। সমালোচকদের মতে, কোনো লজিক নয়, শুধু রজনী ম্যাজিক।

এন্থিরান (২০১০) : এটি ভারতের ব্যয়বহুল সিনেমাগুলোর মধ্যে একটি। এ সিনেমায় রজনীকান্তের দুটি চরিত্র। একটি বিজ্ঞানী ভাসেগরন এবং অন্যটি তার তৈরি করা রোবট চিট্টি। সিনেমায় আপনি রজনীকান্তের কোন চরিত্রটি বেছে নিবেন সেটি আপনার বিষয়। কারণ দুই চরিত্রেই তার অভিনয় ছিল অসাধারণ।

You Might Also Like