উত্তরাখণ্ডে প্রবল বৃষ্টিতে মৃত ৩০; ধংসস্তূপে চাপা পড়ে রয়েছে অনেকে: উদ্ধার কাজ চলছে

এখন সময় ডেস্কঃআজ (শুক্রবার) সকালে আচমকা প্রবল বৃষ্টিতে পিথোরাগড়ে এবং সিংগহালিতে বেশকিছু বাড়ি ঘর সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়। পিথোরাগড়ের জেলা প্রশাসক এইচ সি সেমওয়াল বলেন, ‘আমরা সিংগহালি গ্রাম থেকে ৫ টি এবং থাল গ্রাম থেকে ৩ টি লাশ উদ্ধার করেছি। সেনা এবং অধাসামরিকবাহিনী ত্রাণ এবং উদ্ধার কাজ শুরু করেছে।’

আজ সকালে ভারী বৃষ্টি তথা প্লাবনে কমপক্ষে ৭ টি গ্রাম ভেসে গেছে। পানির তোড়ে ভেসে গেছে বেশ কিছু বাড়ি ঘর। বাড়ি ঘর বিধ্বস্ত হওয়ায় বহু মানুষ ধংসস্তূপের মধ্যে চাপা পড়ে রয়েছে।

flood

প্রবল বৃষ্টি এবং ভূমিধসের জন্য দেবপ্রয়াগের কাছে হৃষীকেশ-বদ্রিনাথ জাতীয় সড়ক বন্ধ হয়ে গেছে। চামোলিতে মন্দাকিনী নদীর তীরে গোপেশ্বরে বেশ কিছু বাড়ি ভেসে গেছে। এখানে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অলকানন্দা নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইতে শুরু করায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে এলাকায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে। স্থানীয় মানুষদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। বহু মানুষ প্রাণ বাঁচাতে বাঁধের উপরে আশ্রয় নিয়েছেন।

রাজ্যের বেশিরভাগ নদীর পানি ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। যমুনোত্রি মহাসড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আবহাওয়া দপ্তর সতর্ক বার্তায় জানিয়েছে আগামী ৭২ ঘণ্টায় নৈনিতাল, উধমসিং নগর ও চম্বাওয়াত জেলায় ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

দুর্যোগ মোকাবিলা দফতরের কর্মকর্তা আর এস রাণা বলেন, ডিডিহাট মহকুমার সাতটি গ্রাম থেকে ২৫ জন নিখোঁজ থাকায় তাদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। এছাড়া যারা ধ্বংসস্তূপের মধ্যে চাপা পড়ে রয়েছেন তাদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

You Might Also Like