সন্ত্রাস প্রতিরোধে মাগুরায় ‘ডিফেন্স পার্টি’

বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় জেলা মাগুরায় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড প্রতিরোধের লক্ষ্যে সাধারণ মানুষদের নিয়ে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ‘ডিফেন্স পার্টি’ গঠন করছে পুলিশ।
জেলাটির পুলিশ বলছে, আগেও এধরণের উদ্যোগ দেখা গেলেও সম্প্রতি বিভিন্ন হত্যাকাণ্ডের কারণে বিশেষভাবে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।
মাগুরার পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্লাহ বলেন, জেলাটি ৩৫ শতাংশ হিন্দু অধ্যুষিত হওয়ায় সাম্প্রতিক সংখ্যালঘু হত্যাকাণ্ডের পরিপ্রেক্ষিতে তারা সাধারণ মানুষকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করতে চাইছেন।
রোববার ডিফেন্স পার্টি নামে নিরাপত্তা বাহিনীর কার্যক্রম উদ্বোধন করেন পুলিশ সুপার। এসময় ডিফেন্স পার্টির স্বেচ্ছাসেবকদের হাতে বাঁশ এবং বাঁশি দেখা যায়।
পুলিশ সুপার মি. এহসান উল্লাহ বলেন, প্রতীকী হিসেবে স্বেচ্ছাসেবকেরা এই বাঁশ ব্যবহার করছেন।
পুলিশ বাহিনী থাকতে এধরণের একটি বাহিনী তৈরির প্রয়োজন কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনেক প্রত্যন্ত অঞ্চলে কোন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ঘটলে পুলিশের পৌছাতে সময় লাগতে পারে সেক্ষেত্রে যাতে মানুষজন সামাজিকভাবে প্রস্তুত থাকে সেজন্যেই তারা তাদের সংগঠিত করছেন।
এর ফলে সন্ত্রাসীরাও ভীত হবে বলে আশা করছে পুলিশ।
মাগুরার ৩৬ টি ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে ডিফেন্স পার্টি গঠনের চেষ্টা করছেন বলে জানান পুলিশ সুপার। প্রতিটি দলে একজন পুলিশ সদস্য, গ্রাম পুলিশ এবং জনপ্রতিনিধিসহ ২০-২৫ জন স্বেচ্ছাসেবক থাকবে।
বিভিন্ন মন্দিরে পুরোহিতদের সাথে বৈঠক করে তাদেরও এ কর্মকাণ্ডে যুক্ত করা হচ্ছে বলে জানায় পুলিশ। -বিবিসি

You Might Also Like