বাংলাদেশের মোবাইল ফোনে বাড়তি টাকা কাটা শুরু!

এখন সময় ডেস্কঃ বাজেট প্রস্তাবের পরের দিন থেকে বাড়তি টাকা কাটা শুরু করেছে সিম কোম্পানিগুলো। বৃহস্পতিবার ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
বাজেটে মোবাইলফোনের সিম বা রিম কার্ডের সেবার ওপর ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাবের পরের দিন থেকেই তা কার্যকর করা শুরু করেছে সিম কোম্পানিগুলো। গত অর্থবছরে সিম বা রিমের মাধ্যমে সেবার ওপর শুল্কের পরিমাণ ছিল তিন শতাংশ।
বৃহস্পতিবার রাতেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এক এসআরও জারি করে টেলিকম কোম্পানিগুলোকে তা কার্যকরের নির্দেশনা দেয়। রাতেই ওই নির্দেশনা বাস্তবায়নে কাজ শুরু করে মোবাইল অপারেটরগুলো। বাড়তি টাকা কাটার বিষয়ে অপারেটরগুলো গ্রাহকদের এসএমএসের মাধ্যমে অবহিত করছে। রবি গ্রাহকদের এসএমএস করে জানিয়েছে, মোবাইল সেবার উপর আগের আরোপিত তিন শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধি করে পাঁচ শতাংশ করা হয়েছে, যা আপনার ট্যারিফে প্রতিফলিত হয়েছে। রবির সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

এদিকে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের ফলে গ্রাহক আগে যেখানে ১০০ টাকা খরচের পর ১৫ টাকা ভ্যাট দিতেন এখন এ ১১৫ টাকার ওপর গ্রাহককে আরও ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক দিতে হবে। ফলে তাকে আরও ৫ দশমিক ৭৫ টাকা বেশি খরচ করতে হবে। সঙ্গে ১ শতাংশ সারচার্জ যুক্ত হয়ে একশ টাকার সেবায় গ্রাহককে গুনতে হবে ১২১ দশমিক ৭৫ টাকা।
প্রসঙ্গত, সিম বা রিম কার্ডের সেবার ওপর ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের বিষয়ে বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘মোবাইলফোনের সিম বা রিম কার্ডের মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার ওপর বিদ্যমান তিন শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধিপূর্বক পাঁচ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব করছি।’ তিনি বলেন, ‘এর ফলে বর্তমান মোবাইলফোন সিম সেবার ওপর ১৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর (মূসক), ১ শতাংশ সারচার্জের সঙ্গে নতুন ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক যোগ হবে।’ কারণ হিসেবে মুহিত বলেন, ‘গত অর্থবছরের বাজেটে আমরা মোবাইলফোনের সিম ট্যাক্স ব্যাপক হারে কমিয়েছি।’ অর্থমন্ত্রী ২০১৫-১৬ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেট এবং ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত তিন লাখ ৪০ হাজার ৬০৫ কোটি টাকার বাজেট পেশ করেছেন।

You Might Also Like