বিশ্বজুড়ে শ্রমদাসের সংখ্যা বাড়ছে, শীর্ষে ভারত: ওয়াক ফ্রি ফাউন্ডেশন

বিশ্বজুড়ে শ্রমদাসের সংখ্যা বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। পরিসংখ্যানের নিরিখে শ্রমদাসের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি রয়েছে ভারতে।

অস্ট্রেলিয়ার এক মানবাধিকার সংগঠনের জরিপ রিপোর্টে প্রকাশ, বিশ্বজুড়ে প্রায় ৪ কোটি ৫৮ লাখ মানুষ কার্যত দাস হয়ে বেঁচে রয়েছেন। এর মধ্যে ভারতেই রয়েছে ১ কোটি ৮৩ লাখ ৫০ হাজার মানুষ। ২০১৪ সালে ভারতে এই সংখ্যা ছিল ১ কোটি ৪৩ লাখ। ২০১৬ সালে তা বেড়ে হয়েছে ১ কোটি ৮৩ লাখ ৫০ হাজার।

এসব মানুষ কার্যত প্রাচীনকালের ক্রীতদাস প্রথার মতোই শোষণ ও বঞ্চনার শিকার হওয়ায় ওই জরিপ রিপোর্টে একে ‘আধুনিক দাস ব্যবস্থা’ বলে অভিহিত করা হয়েছে। এতে বেগার খাটা শ্রমিক থেকে শুরু করে ভিক্ষাবৃত্তি বা দেহব্যাবসাকে ‘আধুনিক দাস ব্যবস্থা’র প্রতিরূপ বলে গণ্য করা হয়েছে।

মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়ার মানবাধিকার সংগঠন ‘ওয়াক ফ্রি ফাউন্ডেশন’ যে ‘ক্রীতদাস সূচক’ প্রকাশ করে তাতেই ধরা পড়েছে ক্রীতদাস সংক্রান্ত ওই তথ্য। ২০১৪ সালে বিশ্বজুড়ে শ্রমদাসের সংখ্যা ছিল ৩ কোটি ৫৮ লাখ। গত দুই বছরে ওই সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ১ কোটি। শ্রমদাসে শীর্ষ তালিকায় থাকা প্রথম পাঁচটি দেশের মধ্যে ভারতের পাশাপাশি দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে রয়েছে যথাক্রমে চীন, পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং উজবেকিস্তান। আধুনিক দাস ব্যবস্থার শিকার মানুষদের মধ্যে ৫৮ শতাংশই হলেন উল্লেখিত ওই পাঁচটি দেশের বাসিন্দা।

‘ওয়াক ফ্রি ফাউন্ডেশন’-এর জরিপ রিপোর্টে প্রকাশ, বিশ্বে ১৬৭ টি দেশে শ্রমদাস রয়েছে। রিপোর্টে উত্তর কোরিয়া সরকার শ্রমদাস রুখতে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়নি বলে উল্লেখ করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার ওই মানবাধিকার সংগঠনটি জরিপ চালানোর জন্য ২৫টি দেশে ৫৩টি ভাষায় প্রায় ৪২ হাজার মানুষের সাক্ষাৎকার নেয়। -পার্সটুডে

You Might Also Like