বোস্টনে ঢাবি’র সাবেক ছাত্র সমিতির জমকালো অভিষেক

জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের স্থায়ী প্রতিনিধি ড.এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ঢাকা  বিশ্ববিদ্যালয়কে ‘অক্সফোর্ড অব দ্য ইষ্ট’ বলা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সুনামকে বজায় রাখতে হলে অবশ্যই নিউইংল্যান্ডসহ যুক্তরাষ্ট্রের সকল ঢাকা এলামনাইয়ে আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশি শিক্ষকদের সম্পৃক্ত করতে হবে। তাদের মেধা, বুদ্ধি আর গবেষনাকে কাজে লাগিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অক্সফোর্ড অব দ্য ইষ্ট’ সেই ঐতিহ্যবাহী সুনামকে বিশ্ববাসীর কাছে দ্রুত ছড়িয়ে দিতে পারবে। এ বিষয়টি ভেবে দেখার জন্য সকল এলামনাইকে তিনি আনুরোধ জানান। গত শনিবার বোস্টনে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন অব নিউইংল্যান্ড (ডুয়ানি) অভিষেক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন, জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের স্থায়ী প্রতিনিধি  ড.এ কে আব্দুল মোমেন।

ড. মোমেন ছাত্র জীবনের স্মৃতি রোমন্থন করে বলেন, ঊনপঞ্চাশ বছর আগে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের ছাত্র ছিলেন। তাঁর ১৩ জন ভাইবোনের মধ্যে তিনিসহ ১১ জনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র সমিতির আজীবন সদস্য।

গত ১৭ মে শনিবার বোস্টনের উপশহর সামারভিলের গ্রীক মেরী অর্থোডক্স চার্চে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন অব নিউইংল্যান্ড (ডুয়ানি) উক্ত জমকালো অভিষেকের আয়োজন করে। নিউইংল্যান্ডে এই প্রথমবারের মতো ঢাবি’র  সাবেক ছাত্র সমিতির নির্বাচন ও অভিষেক অনুষ্ঠিত হলো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও পঞ্চাশ দশকের অধ্যাপক ড.আজিজুল হক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক, প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী আলোচনা সভা, কবিতা আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পবিত্র কোরান তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুর হয়। কোরান তেলাওয়াত করেন মোহাম্মদ শাহজাহান। এরপর মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরনে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ আব্দুল হাকিম নতুন কমিটির ১১ জন সদস্যকে শপথ পাঠ করান। অভিষিক্ত সদস্যরা হলেন সভাপতি মনির সাজি, সাধারন সম্পাদক সায়মন সাবির, সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, সহযোগি সহ-সভাপতি সায়মা আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক আসিফুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ শরীফ আহমেদ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মীর ফজলুল করিম, সমাজ ও ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সাবিনা আহসান, প্রাক্তন ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক নাসিম জাহান, সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক এসএম তামজিদ ও গণযোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক  ফেরদৌস জেসমিন।

নবনির্বাচিত সভাপতি মনির সাজি তার বক্তব্যে বলেন, আমাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন অনেক অনেক পিছিয়ে আছেন পৃথিবীর বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায়। কিন্তু সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা আমেরিকায় এসে বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। সেই সুযোগ ও মেধা আমাদের আছে, সেই মেধাকে কাজে লাগানোর জন্যে দেশে এবং এখানে অনেক কাজ করার আছে। একটা বিশ্ববিদ্যালয় কিভাবে র‍্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমে উপরে যায় তা গবেষণা করে দেখতে হয়। নিউ ইংল্যান্ডে প্রচুর জ্ঞানী ও বুদ্ধিমান ব্যক্তি রয়েছে, তারা সহযোগিতা করলে এই বিশ্ববিদ্যালয়টিকে আরও উপরে নিয়ে যেতে পারে। তিনি উপস্থিত অতিথি জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের স্থায়ী প্রতিনিধি  ড.এ কে আব্দুল মোমেনের দৃষ্টি আকর্ষন করে বলেন, যদি এমন কোন সুযোগ থাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে যে কোন ধরনের প্রকল্প প্রেরন করে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও ষাট দশকের প্রভাষক ড. বিনয় পাল, ড.বামন দাস বসু, ড. মাওদুদুর রহমান ও হাসনা জসিম উদ্দিন মওদুদ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সভাপতি মনির সাজি, সাধারন সম্পাদক সায়মন সাবির, প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. এমএ হাকিম, নির্বাচন কমিশনার নকিব উদ্দিন, ড. আসিফুল ইসলাম, সালমা আলম ও মীর ফজলুল করিম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন অব নিউইংল্যান্ড (ডুয়ানি)’র পক্ষ থেকে অধ্যাপক ড. আজিজুল হক ও ড. বিনয় পালকে ‘সিনিয়র অ্যালামনাই অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হয়। ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি রকীবউদ্দিন আহমেদের প্রেরিত শুভেচ্ছা বার্তা পাঠ করেন মীর ফজলুল করিম। সাংস্কৃতিক পর্বে কবিতা আবৃত্তি করেন কবি বদিউজ্জামান নাসিম, ফেরদৌস জেসমিন, রোকেয়া জামান এলিজা ও মোল্লা বাহাউদ্দিন পিয়াল। সঙ্গীত পরিবেশন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাক তালুকদার, ড. আব্দুল্লাহ শিবিলী, নাসরীন শিবিলী, প্রিয়া ইসলাম, কামরুল আলম জুয়েল ও সুপর্ণা বিশ্বাস। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন ড. আব্দুল্লাহ শিবিলী ও নাসরীন শিবিলী।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৭ অক্টোবর বোস্টনের উপশহর ক্যামব্রিজের রিঞ্জ এভেন্যুর কমিউনিটি রুমে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন (ডুয়ানি) নামে নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মোহাম্মদ আব্দুল হাকিম। তাঁকে সহযোগিতা করেন নির্বাচন কমিশনার নকীব উদ্দিন ও আব্দুল ওয়াহিদ সিনহা সান্টু।

You Might Also Like