২৫ লাখ টাকায় যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন ব্রুকলিনে বাংলাদেশী যুবক নাজমুলের অস্বাভাবিক মৃত্যু

নিউইয়র্ক: সিটির বাংলাদেশী অধ্যুষিত ব্র¤œকলিনের চার্চ-ম্যাকডোনাল্ডে এক প্রবাসী বাংলাদেশী যুবকের অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। বাংলাদেশের নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি উপজেলার দুয়ারিপাড়ার নাজমুল হক নামের এই যুবক মাত্র কিছুদিন আগে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন। গত ১৭ মে মঙ্গলবার সকালে নিজ বিছানা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
নাজমুল হকের ঘনিষ্ঠজনেরা জানান, প্রায় ২৫ লাখ টাকা ব্যয় করে দালালের মাধ্যমে নাজমুল হক ৯০ দিনে বিভিন্ন দেশের সীমাšত্ম পাড়ি দিয়ে স্বপ্নের দেশ আমেরিকায় পৌঁছান।নিউইয়র্কের ব্র¤œকলিনের চার্চ-ম্যাকডোনাল্ড সংলগ্ন ২৩ হেমানা স্ট্রিটে চাচাত ভাই মাহবুবসহ কয়েকজনের সাথে থাকতেন নাজমুল। কিন্তু স্বপ্ন পূরণের প্রথম ধাপ অতিবাহিত হওয়ার প্রক্রিয়াতেই কফিন বন্দি হয়ে দেশে ফেরত যেতে হলো নাজমুলকে।
তার মৃত্যুর কারণ ২৬ মে পর্যন্ত জানা যায়নি। সিটি মেডিক্যাল এক্সামিনার অফিসে বিস্তারিত পরীক্ষা চলছে মৃত্যুর কারণ উদঘাটনে।
নাজমুলের র¤œমমেট ভাই মাহবুব বলেন, সে ফুলটন এলাকায় একটি রেস্টুরেন্টে কাজ করতো। অসুস্থ ছিলেন বলেও মনে হয়নি। নোয়াখালী সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ মিন্টু জানান, ধারণা করা হচ্ছে, হৃদরোগ আক্রাšত্ম হয়ে নাজমুলের মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে।
নাজমুল যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছিলেন ২০১৪ সালের জুলাইতে। বিভিন্ন দেশ ঘুরে মেক্সিকো সীমান্ত অতিক্রম করেন একই বছরের সেপ্টেম্বরে। সে সময় গ্রেফতার হন তিনি। ছাত্রদলের কর্মী হিসেবে এসাইলাম প্রার্থনা করেছিলেন। কিন্তু প্রাথমিক শুনানীতে তা নাকচ করে টেক্সাসের এল পাসো ডিটেনশন সেন্টারে নেয়া হয়। এরপর সেখান থেকে স্থানাšত্মর করা হয় ফ্লোরিডার পম্পানো বিচ ডিটেনশন সেন্টারে। ফ্লোরিডা থেকেই তিনি একই বছরের ডিসেম্বরে প্যারলে মুক্তি পেয়ে নিউইয়র্কে এসেছিলেন। মোহাম্মদ আলী জানান, তার আবেদনের চূড়াšত্ম শুনানীর তারিখ দেয়া হয়েছে দু’বছর পর। অর্থাৎ নাজমুলের ওয়ার্ক পারমিট থেকে বৈধভাবে বসবাসের সবকিছু ছিল।

You Might Also Like