‘দায়েশ বিরোধী লড়াইয়ে’ প্রশিক্ষণ দিতে সেনা পাঠাবে নরওয়ে

জর্দানে সেনা পাঠানোর পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে নরওয়ে । সিরিয়ার সশস্ত্রগোষ্ঠীগুলোকে দায়েশ বিরোধী কথিত লড়াইয়ে প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্য জর্দানে নরওয়ের ৬০ সেনা পাঠানো হবে বলে ঘোষণায় বলা হয়েছে।

 

প্রধানমন্ত্রী এরনা সোলবার্গ বলেছেন, নরওয়ের এ সব সেনাকে সিরিয়ার ভেতরে তৎপরতা চালাতে হলে সে জন্য দেশটির সংসদের সঙ্গে শলা-পরামর্শ করতে হবে।

 

অবশ্য সিরিয়ার কোন কোন সশস্ত্রগোষ্ঠীকে নরওয়ের সেনারা প্রশিক্ষণ দেবে তা জানান নি দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইনি মারি এরিকসেন। তিনি বলেছেন, তার ভাষায়, এদেরকে অনেক বেছে নেয়া হয়েছে। তার দাবি অনুযায়ী, এ সব ব্যক্তি আইএসআইএল’এর বিরুদ্ধে তৎপরতা চালাবে এবং সিরিয়ায় বিরাজমান যুদ্ধবিরতি কোনো ভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত করবে না।

 

দায়েশের বিরুদ্ধে কথিত লড়াইয়ে নিয়োজিত মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের অনুরোধে এ সব সেনা মোতায়েন করা হবে বলে নরওয়ের প্রতিরক্ষা প্রধান জানিয়েছেন। ইনি মারি এরিকসেন বলেন, তার ভাষায়, যুদ্ধ করবে অন্যেরা তবে নরওয়ে তাদের যুদ্ধ সক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করবে।

 

সিরিয়ায় মোতায়েন সেনা সংখ্যা আড়াইশ’ থেকে বৃদ্ধি করে তিনশ’ করা হবে বলে গতমাসে আমেরিকা ঘোষণা দিয়েছে। তারপরই নরওয়ে সেনা পাঠানোর পরিকল্পনা ঘোষণা করল। নরওয়ে এর আগে পূর্বাঞ্চলীয় ইরাকে ১২০ সেনা পাঠিয়েছে। কুর্দি পেশমারগা বাহিনীকে দায়েশ বিরোধী লড়াইয়ের প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্য এ সব সেনাকে পাঠানো হয়েছিল বলে নরওয়ে দাবি করেছিল।

You Might Also Like