কাশিমপুর কারাগারের কাছে হামলা, কারারক্ষী নিহত  

গাজীপুরের কাশিমপুর কারাফটকের ২০০ গজ দূরে দুই মোটরসাইকেল আরোহীর অতর্কিতে ছোড়া গুলিতে সাবেক কারারক্ষী রুস্তম আলী (৫০) নিহত হয়েছেন। পুলিশ এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে। আজ সোমবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

রুস্তম আলীর গ্রামের বাড়ি পিরোজপুরে মঠবাড়িয়া উপজেলার চরকগাছিয়া গ্রামে। তিনি কারারক্ষী পদ থেকে কয়েক মাস আগে অবসর নেন।

পুলিশ জানায়, কাশিমপুর কারাগারের মূল ফটক থেকে ২০০ গজ দূরে আহমদ মেডিসিন কর্নার নামের একটি ওষুধের দোকানে ওষুধ কিনতে যান রুস্তম আলী। এ সময় দুই মোটরসাইকেল আরোহী অতর্কিতে গুলি ছুড়ে পালিয়ে যায়। এতে সাবেক কারারক্ষী রুস্তম আলী গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে পড়ে যান। কোনাবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ ও স্থানীয় কয়েকজন রুস্তম আলীকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেন। হাসপাতালের নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনাস্থলে রক্তের ছোপ দেখা গেছে। র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) ও পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। ঘটনাস্থলটি পুলিশ ঘিরে রেখেছে।

কারাফটকের দুই পাশে প্রায় ২০০টি দোকান রয়েছে। ওই ঘটনার পরে সব দোকান বন্ধ রয়েছে।

গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা আবদুস সালাম সরকার প্রথম আলোকে বলেন, রুস্তম আলীকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালের আনা হয়েছিল। তাঁর মাথা ও বুকে তিনটি গুলি লেগেছে।

কোনাবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত কর্মকর্তা মোবারক হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, রুস্তম আলী কাশিমপুর কারাগারের সার্জেন্ট সুবেদার ছিলেন। তিনি কয়েক মাস আগে অবসরে গেছেন।

গাজীপুরের সহকারী পুলিশ সুপার মনোয়ার হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, একটি মোটরসাইকেলে দুই বা তিনজন এসে অতর্কিত হামলা চালায়। তদন্ত না করে বলা যাবে না কারা, কেন এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

মনোয়ার হোসেন আরও বলেন, ওই ওষুধের দোকানের মালিক সাইফুল ইসলামকে পুলিশ আটক করেছে।

এর আগে কারা অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক (আইজি-প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, মোটরসাইকেলে দুই আরোহী অতর্কিতে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারের প্রধান ফটকে গুলি ছোড়ে। এতে সর্বপ্রধান কারারক্ষী রুস্তম আলী নিহত হন। গুলি ছুড়ে পালানোর সময় মোটরসাইকেলের এক আরোহীকে আটক করা হয়েছে।

You Might Also Like