মংলার পৌর মেয়র বরখাস্ত

অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীদের পাওনা পরিশোধ না করা ও বিধি বর্হিভূতভাবে কর্মচারীকে পদোন্নতি দেওয়ার অভিযোগে বাগেরহাটের মংলা পৌরসভার মেয়র জুলফিকার আলীকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে সরকার।

মঙ্গলবার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব মো. আবদুর রউফ মিয়া স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ দেওয়া হয়।

জুলফিকার মংলা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক।

সেইসঙ্গে প্যানেল মেয়র-১ কে মেয়রের দায়িত্বভার গ্রহণ করে দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনার আদেশ দেওয়া হয়েছে ওই প্রজ্ঞাপনে।

ওই বরখাস্তের আদেশের চিঠি বুধবার দুপুর পর্যন্ত বাগেরহাটে পৌঁছেনি বলে জানিয়েছেন বাগেরহাটের স্থানীয় সরকার শাখার উপ পরিচালক শফিকুল ইসলাম।

তবে বিষয়টি শুনেছেন বলে জানান তিনি।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, মংলা পৌরসভার অবসরপ্রাপ্ত কর নির্ধারক দান্তে সুধাংশু সরদার, স্টোর কিপার নির্মলা ভান্ডার, কার্য সহকারী মো. আবু বকর সিদ্দিক, নিম্নমান সহকারী কাম মুদ্রাক্ষরিক শেখ জাবেদ আলী, কর আদায়কারী মো. নুরুল আমিন, অফিস সহায়ক (এমএলএসএস) মো. আব্দুল মান্নানসহ অন্যান্য অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীদের পাওনা টাকা পরিশোধের জন্য মেয়রকে একাধিকবার আদেশ দেওয়া হলেও তিনি তা পরিশোধ করেননি।

এছাড়া মো. শহীদুল ইসলাম নামে এক অফিস সহায়ককে (এমএলএসএস) নিম্নমান সহকারী কাম মুদ্রাক্ষরিকের পদে ক্ষমতার অপব্যবহার করে পদোন্নতি দেওয়ার অভিযোগও আনা হয়।

ক্ষমতার অপব্যবহার ও অসদাচারণের দায়ে মেয়র জুলফিকার আলীকে স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন ২০০৯ এর (৩১) ধারার বিধান অনুযায়ী সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়।

এ বিষয়ে জুলফিকার আলী বলেন, “স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় আমাকে সাময়িক বরখাস্ত করে একটি চিঠি পাঠিয়েছে বলে শুনেছি। ওই চিঠি হাতে পাইনি, হাতে পেলে পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ নেব।”

You Might Also Like