এনজি ‘কে দেয়া হচ্ছে ভোটার তালিকা হালনাগাদ প্রচারণার দায়িত্ব

নির্বাচন কমিশন দেশব্যাপী ছবিসহ ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে স্থানীয় পর্যায়ে প্রচারণার দায়িত্ব বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাকে (এনজিও) দিচ্ছে। এ বিষয়ে বিভিন্ন এনজিও সংস্থার সঙ্গে আলোচনা চলছে। বুধবার কমিশনে ইসি’র তালিকাভুক্ত এনজিও সংস্থাগুলো ইসি’র সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করছে।

ইসির জনসংযোগ শাখা জানিয়েছে, হালনাগাদের মতো বিশাল কর্মযজ্ঞে ব্যাপক প্রচারণার প্রয়োজন। প্রচারণায় ইতোমধ্যে বিভিন্ন কার্যক্রম প্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন। গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার, মোবাইল ফোনে ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমে প্রচার, মাইকিং, টিভি স্পটসহ বিভিন্নভাবে প্রচারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এছাড়া মাঠ পর্যায়ে প্রচারের জন্য পোস্টার, লিফলেট, ব্যানারে প্রচারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কেন্দ্রীয়ভাবে নির্বাচন কমিশন নিজেও প্রচারণা চালাচ্ছে। এনজিওদের মাধ্যমে যেভাবে প্রচারণা চালানো হবে এরমধ্যে রয়েছে মুদ্রিত প্রচার সামগ্রী বিশেষ করে পোস্টার, লিফলেট লাগানো, স্থানীয় পর্যায়ে মাইকিং করা, র‌্যালী ও সমাবেশের আয়োজন এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন উৎসাহমূলক কর্মসূচি সম্পন্ন করা।

এছাড়া এনজিওগুলো নিজেদের মতো করেই প্রচার সামগ্রী তৈরি করে তা প্রচার করতে পারবে। তবে এর আগে তা ইসি থেকে ভেটিং করে নিতে হবে। এ বিষয়ে ইসির জনসংযোগ পরিচালক এসএম আসাদুজ্জামান বলেছেন, এনজিওদের সঙ্গে প্রচারণা নিয়ে বৈঠকে চূড়ান্ত করা হবে।

ইসির পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামীকাল বৃহস্পতিবার দেশে তৃতীয় বারের মতো ছবিসহ ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু হবে। যা শেষ হবে আগামী ১৫ নভেম্বর। এবার প্রায় ৪৬ লাখ নতুন ভোটারকে তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা নিয়েছে ইসি। হালনাগাদে খরচ হচ্ছে ৫৬ কোটি টাকা। ২০১২ সালে দেশে ৭০ লাখ নতুন ভোটারকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিলো।

You Might Also Like