বাংলাদেশ ব্যাংকে সিআইডির তদন্ত দল

রিজার্ভের অর্থ চুরির ঘটনায় অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক শাহ আলমের নেতৃত্বে সিআইডির একটি তদন্ত দল বাংলাদেশ ব্যাংকে গেছে।

বুধবার সকালে তারা বাংলাদেশ ব্যাংকে যায়। এরআগে মঙ্গলবার দায়িত্ব দেয়ার পরপরই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনা তদন্তে নেমেছে সংস্থাটি।

সিআইডির একটি সূত্র জানায়, এ ঘটনায় সদ্য পদত্যাগ করা গভর্নর ড. আতিউর রহমান এবং অপসারণ করা দুই ডেপুটি গভর্নর আবুল কাশেম ও নাজনীন সুলতানাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে।

এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংকে রিজার্ভের অর্থ চুরির ঘটনায় মঙ্গলবার মতিঝিল থানায় মামলা হয়েছে। মামলার পর গ্রেফতার ও আটকের বিষয়ে আইনশৃংখলা বাহিনীর তিনটি সংস্থা নিজেরা সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করছে। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কাছে মামলার নথিপত্র রাতেই হস্তান্তর করে মতিঝিল থানা পুলিশ।

অপরদিকে র‌্যাব ও গোয়েন্দা পুলিশ কাজ শুরু করেছে। যদিও র‌্যাবের পক্ষে আরও কয়েকদিন আগে থেকেই ছায়া তদন্ত শুরু করা হয়।

জানা গেছে, রিজার্ভের অর্থ চুরির সঙ্গে জড়িত সন্দেহে চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে আইনশৃংখলা বাহিনী। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এরা হলেন ডিলিং রুশ শাখা ও আইটি কর্মকর্তা।

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আইনশৃংখলা বাহিনী বাংলাদেশ ব্যাংকের এ চার কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। তাদের (গোয়েন্দা) মতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ব্যাক অফ দ্য ডিলিং রুম শাখায় এ ঘটনার সূত্রপাত হলেও এর সঙ্গে আইটি বা সিস্টেম নিয়ে যারা কাজ করেন তাদেরও কেউ কেউ জড়িত। প্রযুক্তিগত এবং ইলেকট্রনিক এভিডেন্স খতিয়ে দেখে তারা এ বিষয়ে অনেকটাই নিশ্চিত হয়েছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতেই চার কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

You Might Also Like