মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রীকে অপহরণের পরিকল্পনা করেছিল আইএস

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক ও দেশটির অন্যান্য জ্যেষ্ঠ মন্ত্রীদের গত বছর অপহরণের পরিকল্পনা করেছিল আইএস।

মঙ্গলবার দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী আহমেদ জাহিদ হামিদি জানিয়েছেন, আইএসের ওই পরিকল্পনাটি বানচাল করে দিয়েছেন মালয়েশীয় পুলিশ।

উপপ্রধানমন্ত্রীত্বের পাশাপাশি দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা আহমেদ জাহিদ জানান, জঙ্গিরা মালয়েশিয়ার প্রশাসনিক রাজধানী পুত্রজায়ায়ও হামলার পরিকল্পনা করেছিল।

এজন্য তারা বিস্ফোরক প্রস্তুত করে তা পরীক্ষা করেছিল বলেও জানান তিনি।

জাহিদ বলেন, “২০১৫ সালের ৩০ জানুয়ারি দায়েশের সঙ্গে সম্পর্কিত ১৩ ব্যক্তি দেশের প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীসহ নেতাদের অপহরণ করার পরিকল্পনা করেছিল।”

আইএসের হুমকি মোকাবিলায় মালয়েশিয়ার উদ্যোগ সম্পর্কিত প্রশ্নের জবাবে জাহিদ এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, “পুত্রজায়ায়ও হামলার পরিকল্পনা ছিল। পরিকল্পনার শেষ পর্যায়ে গোষ্ঠীটি বিস্ফোরক প্রস্তুত করে পরীক্ষাও করেছিল। এই দেশে দায়েশের (আইএস) কোনো উপযুক্ত অবস্থান না থাকলেও, সিরিয়ার আইএস নেটওয়ার্কের প্রভাবে ও তাদের নির্দেশে এখানে যারা আছে তারা এসব করছিলেন।”

তিনি জানান, ২০১৪-র সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৫ মে পর্যন্ত আইএস সদস্যরা দেশটির রাজধানী কুয়ালালামপুর, পুত্রজায়া এবং কাদেহ রাজ্যে চারটি বড় ধরনের হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল।

পরিকল্পনায় সামরিক শিবির থেকে অস্ত্র চুরি, বোমা ও বিস্ফোরক তৈরি, নগদ অর্থ চুরি এবং রাষ্ট্র নেতাদের অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় অন্তর্ভুক্ত ছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।

এছাড়া বিনোদন কেন্দ্র, একটি শিয়া মসজিদসহ ধর্মীয় ভবন এবং একটি বৌদ্ধ মন্দিরেও জঙ্গিরা হামলার পরিকল্পনা করেছিল বলে জানান জাহিদ।

মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ মালয়েশিয়া উল্লেখযোগ্য কোনো হামলার মোকাবিলা করেনি। কিন্তু ২০১৫-র জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত অন্তত ১৬০ আইএসকে তৎপরতায় জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছে। এদের মধ্যে সাতজন আইএস-র একটি সেলের সদস্য বলে ধারণা করা হয়।

১৪ জানুয়ারি ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় আইএসের সঙ্গে সম্পর্কিত জঙ্গিরা সশস্ত্র হামলা চালানোর পর থেকে মালয়েশিয়া উচ্চ সতর্কবস্থায় রয়েছে।

You Might Also Like