২৮ বছর পর ইতালির ওস্তানায় জন্মাল বাচ্চা

৮০-র দশকের পর আর কোনও বাচ্চার কান্না শোনেনি এই শহর। দেখেনি কোনও নবজাতকের ফুটফুটে মুখ। তাই ২৮ বছর পর পাবলোর জন্ম নিয়ে উৎসবে মাতোয়ারা গোটা শহর। গত সপ্তাহে ইতালির ওস্তানাবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্নকে সত্যি করে পৃথিবীর আলো দেখেছে পাবলো। দীর্ঘ ২৮ বছর পর কোনও শিশুর জন্ম দেখল মাত্র ৮৫ জন জনসংখ্যার শহর ওস্তানা।
ইতালির অন্যান্য আরও কয়েকটি শহর ও গ্রামের মতোই ক্রমহ্রাসমান জনসংখ্যার শহর ওস্তানায় শিশু জন্মে, তাই উৎসবের আমেজ ধরা পড়েছে। এই উপলক্ষে পার্টি হবে বলে ঘোষণা দিয়ে মেয়র গিয়াকোমো লোম্বারডো জানিয়েছেন, জনসংখ্যা কমতে শুরু করে ১৯৭৫ সাল থেকে। ১৯৭৬ থেকে ১৯৮৭ সাল পর্যন্ত এখানে মাত্র ১৭ জন শিশুর জন্ম হয়। ৮৭ সালের পর ছোট্ট পাবলোর জন্মের আগে পর্যন্ত আরও কোনও শিশুর জন্মায়নি। উত্তর ইতালির এই শহরে রয়েছে একটি দোকান, একটি বার ও দুটি রেস্তোরাঁ। ভালো চাকরির অফার পেয়ে বৃদ্ধ-বাবা-মাকে রেখে যুব সম্প্রদায় শহর ছেড়ে অন্যত্রে পাড়ি জমাচ্ছে।
এজন্য জনসংখ্যা হ্রাসের প্রবণতা ঠেকানো কষ্টকর বলে জানিয়েছেন ওস্তানার মেয়র। গত কয়েক দশকে এই প্রবণতা মারাত্মক আকার নিয়েছে দক্ষিণ ইতালির সিসিলি দ্বীপসহ বিভিন্ন জায়গায়। পরিস্থিতি মোকাবিলায় কোনও কোনও শহরে প্রত্যেক অধিবাসীর শারীরিক চেক-আপ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অসুস্থতা থেকে মৃত্যুর সংখ্যা কমাতেই এই উদ্যোগ। সিসিলির একটি শহর আবার নিয়েছে এক নতুন পরিকল্পনা। ২০টি বাড়ি মাত্র ২ ডলারে বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। অন্তত ৫০ জন এই সুযোগ পেতে ঝাঁপিয়েছে।

You Might Also Like