বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট সম্পাদকের বিরুদ্ধে সভাপতি তারানার জালিয়াতি মামলা

সই জাল করে ‘প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আদায়ের’ অভিযোগে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন আওয়ামী লীগের এই সহযোগী সংগঠনের সভাপতি টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

তার পক্ষে একান্ত সচিব জয়দেব নন্দী রোববার রাতে শাহবাগ থানায় এ মামলা করেন বলে ওসি আবু বকর সিদ্দিক জানান।

“তদন্তে অভিযোগের সত্যতা মিললে আসামিকে গ্রেফতার করা হবে,” বলেন ওসি।

মামলার এজাহারে বলা হয়, অরুণ সরকার রানা (৪৫) ২০১৪ ও ২০১৫ সালের বিভিন্ন তারিখে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে জোটের কর্মসূচির নামে বিজ্ঞাপন ও স্পন্সরশিপের অর্থ আদায় করেছেন।

জোটের সভাপতি তারানা হালিমের নাম, পদবি ও সই জাল করে সংগঠনের প্যাড ব্যবহার করে তিনি এ কাজ করেছেন।

এ বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, “অরুণ সরকার রানা বিভিন্ন দলীয় কর্মসূচির কথা বলে বিভিন্ন সংগঠনের থেকে স্পন্সর নিতে সংগঠনের প্যাডে আমার স্বাক্ষর জালিয়াতি করেছেন, আমার স্বাক্ষর জালিয়াতি করে টেলিটকের কাছেও স্পন্সর চাওয়া হয়। বিষয়টি নজরে আসলে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।”

ক্ষুব্ধ কন্ঠে তিনি বলেন, “আমি দুর্নীতি সহ্য করি না। দুর্নীতির সঙ্গে নিজ সংগঠনের কেউ জড়িত থাকলেও আমি তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দ্বিধা করি না। অন্যায়ের সঙ্গে কোনোদিন আপস করিনি ও করবও না।”

অরুণ সরকারকে সংগঠন থেকে বহিষ্কারের সুপারিশ করার পরিকল্পনার কথাও জানান প্রতিমন্ত্রী।

তবে জালিয়াতির অভিযোগ অস্বীকার করে এ বিষয়ে কিছুই জানতেন না বলে দাবি করেছেন অরুণ সরকার রানা।

তিনি বলেন, “আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সত্য নয়। সংগঠনের যে প্যাডে মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করার কথা বলা হচ্ছে, সেখানে আমার স্বাক্ষরও জাল করা হয়েছে।

“কোনো একটি কোম্পানি আমার এবং আপার সই জাল করে টেলিটকের বিজ্ঞাপন নিয়েছে। পরশু জয়দেব নন্দী আমাকে ফোন করেছিলেন, আমি তাকেও একই কথা বলেছি। আমার মনে হচ্ছে, এটা আমাকে পদ থেকে সরানোর ষড়যন্ত্র।”

You Might Also Like