জঙ্গি হামলার আশঙ্কায় ভারতে সতর্কতা

ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো (আইবি) আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছে, দেশটির প্রজাতন্ত্র দিবসের আগে হামলা চালাতে পারে বাংলাদেশে নিষিদ্ধঘোষিত সংগঠন হিযবুত তাহরীর।

গত ১৫ জানুয়ারি, শুক্রবার বাংলাদেশ থেকে করা টেলিফোন আলাপের সূত্র ধরে আইবির গোয়েন্দারা এ শঙ্কা করেছেন।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, ওই নম্বর থেকে দুবার ফোন আসে। সেখানে হিন্দিতে বলা হয়, ‘ডক্টর মেডিসিন লেকার জায়েগা’, যার অর্থ, ডাক্তার ওষুধ নিয়ে যাবেন।

এরই মধ্যে ভারতের সব রাষ্ট্রের পুলিশ বিভাগকে দেশের ২৪টি স্থানে সম্ভাব্য বোমা ও আত্মঘাতী হামলার বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। ১৬ থেকে ২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত এসব এলাকায় কড়া নজরদারি করতে বলা হয়েছে।

২৬ জানুয়ারি ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস। তাই এর আগেই সম্ভাব্য হামলা এড়াতে সতর্ক অবস্থায় আছে ভারতের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ভারতের আম্বালার পুলিশ কমিশনার ওপি সিং ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেন, ‘১৯ থেকে ২৩ জানুয়ারির মধ্যে সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে আমরা গোয়েন্দাদের কাছ থেকে সুনির্দিষ্ট সতর্কবার্তা পেয়েছি। দেশজুড়েই এই সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী আমরা আম্বালা ও পাঁচকুলার নিরাপত্তা জোরদার করেছি। পুলিশ অতিরিক্ত সতর্ক অবস্থায় আছে। নাগরিকদের সতর্ক থাকতে বলা হচ্ছে। কোথাও কোনো সন্দেহজনক কর্মকাণ্ড দেখলে পুলিশে খবর দিতে অনুরোধ করা হচ্ছে।’

ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, ধারণা করা হচ্ছে ইন্ডিয়ান মুজাহিদীন, লস্কর-ই-তৈয়বা ও জইশ-ই-মোহাম্মদের মতো জঙ্গি সংগঠনগুলো হিযবুত তাহরীরকে সাহায্য করছে। কিছুদিন আগে পাঠানকোটে বিমানবাহিনীর ঘাঁটিতে হামলা চালিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সাত সদস্যকে হত্যার ঘটনায় এই জঙ্গি সংগঠনগুলোর হাত রয়েছে বলে সন্দেহ করা হয়।

সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, ‘ভারতের সেনাবাহিনী, বিমানবাহিনী, সীমান্তরক্ষী বাহিনী এবং অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনীকে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলা ও প্রতিরোধের জন্য সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় থাকতে বলা হচ্ছে।’

হিযবুত তাহরীর বিভিন্ন বিপণিবিতান, বাজার ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হামলা চালাতে পারে বলেও ওই বার্তায় উল্লেখ করা হয়েছে।

আগামী ২৬ জানুয়ারি ভারতের ৬৭তম প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ। তিনি এসে উঠবেন চণ্ডীগড়ের তাজ হোটেলে। সে কারণে হোটেলটির চারদিকে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও হোটেলটির সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করেছেন।

You Might Also Like