পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা

স্ত্রী বৃষ্টিকে (২৮) জবাই করে প্রেমিকার সঙ্গে হানিমুন করছে পাষণ্ড স্বামী সোহাগ! রাজধানীর মিরপুরে ঘটেছে এমন নির্মম ঘটনা। পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে গলা কেটে জবাই করেছে পাষণ্ড স্বামী সোহাগ। গত ১৬ই জানুয়ারি মিরপুর থানার শেওড়াপাড়ার ৯৩ নম্বর বাসায় পরকীয়ার জেরে সৃষ্ট ঝগড়ার একপর্যায়ে স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ঘটনার তিন দিন পর মঙ্গলবার বিকালে বৃষ্টির বোনের কাছে তার খবর জানতে চাইলে সে হানিমুন করছে এবং বৃষ্টির খবর জানে না বলে জানায়।

এরপর বৃষ্টির ওই বোন ও দুলাভাই মিরপুরে তাদের বাসায় ছুটে যান। দরজায় তালা দেখতে পান। এমন সময় ভেতর থেকে দুর্গন্ধ পেয়ে দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকেন। এরপর পুলিশে খবর দেয়া হয়। পোশাক শ্রমিক বৃষ্টির গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরে ঢাকা মেডিকেল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বৃষ্টির স্বজন ও স্থানীয়রা জানান, গুলশান এলাকায় একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে কাজ করে বরিশালের বাসিন্দা সোহাগ। তার সঙ্গে এক বছর আগে মুন্সীগঞ্জের মেয়ে বৃষ্টির বিয়ে হয়। পরে সোহাগের পরকীয়ার বিষয়টি জেনে যায় স্ত্রী। এ নিয়ে তাদের মাঝে মাঝে ঝগড়া হতো। গত ১৬ই জানুয়ারিও ঝগড়া হয়। এরপর থেকে বৃষ্টির মুঠোফোন বন্ধ ছিল।

একপর্যায়ে গতকাল বৃষ্টির বোন সোহাগের মুঠোফোনে কল করে। জানতে চায় বৃষ্টির কথা। তখন সোহাগ জানায়, সে তার অন্য স্ত্রীকে নিয়ে হানিমুন করছে। বৃষ্টির খবর জানে না। তার খোঁজ নিতে বলেন। সোহাগের মুখে এমন কথা শুনেই তারা মিরপুরে তাদের বাসায় ছুটে যায়।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মিরপুর জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (অপরাধ) মাসুদ আহমেদ বলেন, পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে জবাই করার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য বৃষ্টির গলিত লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

You Might Also Like