‘জঙ্গলে নিয়ে দু’হাত কেটে দেন বাবা’

ছয় বছরের শিশু রবিউল ইসলাম ওরফে শান্তকে ভিক্ষাবৃত্তির জন্য দুই হাত কেটে দেওয়ার মামলায় শিশুটি তার সৎ পিতার বিরুদ্ধে আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছে।

ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক শফিউল আজম এ শিশুটির জবানবন্দি রেকর্ড করেন। আগামী ১৮ জানুয়ারি পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য করেছেন আদালত।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রবিউলকে চিপস খাওয়ানোর কথা বলে তার সৎ পিতা জাহাঙ্গীর তেজগাঁও এলাকার একটি জঙ্গলে নিয়ে যায়। এরপর তার পিতাসহ কয়েকজন মিলে শিশুটির হাত-পা বেঁধে ধারালো দা দিয়ে শিশুটির দুহাত কেটে ফেলে। এ ঘটনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে শিশুটির মা নাসিমা আকতার বাদী হয়ে বনানী থানায় তাঁর স্বামীসহ অজ্ঞাত কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত শেষে বনানী থানার উপপরিদর্শক ওই বছরের ১৭ সেপ্টেম্বর শিশুটির সৎ পিতা জাহাঙ্গীর ও তার সহযোগী আসলাম সরকারের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। এ মামলার ১২ জন সাক্ষীর মধ্যে দুজনের সাক্ষ্য নেওয়া শেষ হয়েছে।

জবানবন্দিতে শিশুটি আদালতে বলেছে, তার সৎ বাবা তাকে চিপস খাওয়ানোর কথা বলে তেজগাঁওয়ের একটি জঙ্গলে নিয়ে অন্যদের সহযোগিতায় তার দুহাত কেটে ফেলে।

মামলার আসামি জাহাঙ্গীর হোসেন ও আসলাম সরকার গ্রেপ্তার হয়ে বর্তমানে কারাগারে। শিশুটিকে আইনগত সহযোগিতা দিচ্ছে বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবী সমিতি।

You Might Also Like