থার্টি ফার্স্ট নাইটে সন্ধ্যার পর অনুষ্ঠান না করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

থার্টি ফার্স্ট নাইটে সন্ধ্যার পর অনুষ্ঠান না করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন করতে বলেছেন তিনি।

এছাড়া যেকোনো আনন্দ উৎসব পালনের আগে তিনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে পরামর্শ করতে বলেছেন।

সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। নির্দিষ্ট আলোচ্যসূচি শেষ হওয়ার পর অনানুষ্ঠানিক এক আলোচনায় শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

ওই আলোচনায় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন আন্তর্জাতিক পর্যটন বর্ষ উপলক্ষে আতশবাজিসহ অন্যান্য অনুষ্ঠান সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন।

এ বিষয়ে আলোচনার সূত্র ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, থার্টি ফার্স্ট নাইটে সন্ধ্যার পর অনুষ্ঠান ঠিক হবে না বলে তিনি মনে করেন।

রাশেদ খান মেনন জানান, পরিস্থিতির কারণে আন্তর্জাতিক পর্যটন বর্ষ উপলক্ষে কক্সবাজারে আয়োজিত আতশবাজি অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়েছে। তবে অন্যান্য কর্মসূচি বহাল থাকবে।

বৈঠকে অংশ নেয়া একাধিক মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন বাংলাদেশের বিরুদ্ধে দেশে-বিদেশে নানা ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের অভাব নেই। এই পরিস্থিতিতে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে বলে মতপ্রকাশ করেছেন শেখ হাসিনা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রধানমন্ত্রী নববর্ষ পালনের পরামর্শ দিয়েছেন।

সূত্র জানায়, নিরাপত্তাবিষয়ক ওই অনানুষ্ঠানিক আলোচনায় বাংলা নববর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় ছাত্রী লাঞ্ছনার প্রসঙ্গ ওঠে।

আলোচনায় অংশগ্রহণকারীরা জানান, এ ঘটনায় পুলিশ চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে। কেউ এ ঘটনায় সাক্ষী দেয়নি। এমনকি নির্যাতিত ছাত্রীও কোনো বক্তব্য দেয়নি। কোনোরকম সাক্ষ্যপ্রমাণ না পাওয়ায় পুলিশ চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে। এই প্রতিবেদন নিয়ে এখন আবার প্রশ্ন তোলা হচ্ছে।

You Might Also Like