এ যাত্রা থামবে না: ওবায়দুল কাদের

আসছে জানুয়ারিতেই বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপালের (বিবি আইএন) মধ্যে যানবাহন চলাচল শুরু হচ্ছে জানিয়ে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘ছোট-খাট’ বিভেদ এ যাত্রায় বাধা হতে পারবে না।
সোমবার সোনারগাঁও হোটেলে আঞ্চলিক যোগাযোগ অবকাঠামো নিয়ে বিবি আইএনের মৈত্রী মোটর শোভাযাত্রার প্রতিনিধিদের এক সেমিনারে তিনি এই আশা প্রকাশ করেন।
মোটর শোভাযাত্রার ২০টি গাড়িতে রোববার ঢাকায় পৌঁছান চার দেশের ৮০ জন প্রতিনিধি।
শোভাযাত্রাটি ১৫ নভেম্বর ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যের ভূবনেশ্বর থেকে যাত্রা শুরু করে টানা ১৫ দিন সাড়ে ৩ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে রোববার ঢাকা পৌঁছায়।
মন্ত্রী কাদের সেমিনারে বলেন, “ভারতের সঙ্গে সন্দেহ-অবিশ্বাস দূর করেই সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। সীমান্তের সব সমস্যাই সমাধান করা হবে। ছোট-খাট বিভেদ ও সমস্যা থাকবে, তবে তা হবে সাময়িক; এতে যাত্রা বিঘিœত হবে না।”
তিনি জানান, যাত্রীবাহী, পণ্যবাহী ও ব্যক্তিগত যান চলাচলের বিভিন্ন বিষয় চূড়ান্ত করতে ৩-৪ ডিসেম্বর কলকাতায় চার দেশের কর্মকর্তা পর্যায়ে কর্মশালা হবে।
“কর্মশালায় যানবাহন ট্র্যাকিং সিস্টেমসহ অন্যান্য বিষয় চূড়ান্ত করার আলোচনা হবে। ডিসেম্বরের মধ্যে সদস্য দেশগুলোর প্রস্তুতি সম্পন্ন হলে জানুয়ারি থেকে চার দেশের মধ্যে যান চলাচল শুরু হবে।”
তিনি বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্য ও জনগণের যোগাযোগ সম্প্রসারণে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে আন্তঃদেশীয় সড়ক যোগাযোগ স্থাপনে বাংলাদেশ সব সময়ই আন্তরিক।
গত ১৫ জুন বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপালের মধ্যে সড়ক পথে যাত্রীবাহী, ব্যক্তিগত ও পণ্যবাহী যান চলাচলে মোটরযান চুক্তি হয়। এর আওতায় পরীক্ষামূলকভাবে এ মোটর শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়।
উড়িষ্যার কলিঙ্গ মোটর স্পোর্টস ক্লাব, প্রতিবেশী দেশগুলোর ক্লাব ও ভারত সরকারের সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক মন্ত্রণালয় যৌথভাবে শোভাযাত্রার আয়োজন করে।
১ ডিসেম্বর ঢাকা থেকে যশোরের বেনাপোল হয়ে কলকাতা যাবে এই শোভাযাত্রা।
কলকাতায় পৌঁছতে মোট চার হাজার ২২৩ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেবে শোভাযাত্রাটি। সেখানে পরদিন ২ ডিসেম্বর সেমিনারের মাধ্যমে শেষ হবে শোভাযাত্রা।

You Might Also Like