বিধ্বস্ত রুশ বিমানের ভেতরে বোমা বসানো ছিল: মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা

মিশরের সিনাই উপদ্বীপের আকাশে বিধ্বস্ত রুশ যাত্রীবাহী বিমানটির ভেতরে একটি প্রচলিত বিস্ফোরক দ্রব্য বসানো ছিল বলে দাবি করেছেন মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। তারা বলেছেন, বিমানটির ভেতরে বোমা বিস্ফোরণের ফলেই এটি মধ্য আকাশে ভেঙে টুকরা টুকরা হয়ে যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে দেশটির নিউজ চ্যানেল সিএনএন জানিয়েছে, বিমানটিতে বোমা পেতে রাখার ঘটনায় তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশের হাত থাকতে পারে। তিনি দাবি করেছেন, মিশরের যে বিমানবন্দর থেকে রাশিয়ার মেট্রোজেট এয়ারবাস ৩২১ আকাশে উড়েছে সেটি ‘নিরাপত্তাহীনতা’র জন্য বিখ্যাত।

ওই কর্মকর্তা বলেন, “এই বিমানবন্দরটিতে নিরাপত্তার অভাব রয়েছে। এ বিষয়টি সবার জানা।” তবে বোমা পেতে রাখার ঘটনায় বিমানবন্দরেরই একটি মহলের হাত রয়েছে বলেও গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে দাবি করেন তিনি।

ওয়াশিংটনে আরেক মার্কিন কর্মকর্তা মনে করেন, একটি বিমানবন্দরের নিরাপত্তা বেষ্টনি ভেদ করে বিমানের ভেতর বোমা পেতে রাখা সম্ভব নয়। তবে যেই এই কাজটি করেছে সে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা শৈথিল্যকে কাজে লাগিয়েছে অথবা বিমানবন্দরের কারো সহযোগিতা নিয়েছে।

গত শনিবার মিশরের শারম আশ-শেইখ থেকে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে যাওয়ার পথে সিনাই উপদ্বীপে বিধ্বস্ত হয়ে একটি রুশ যাত্রীবাহী বিমান। এ ঘটনায় বিমানটির ২২৪ আরোহীর সবার মর্মান্তিক মৃত্যু হয়। শনিবারই শেষ বেলায় উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশ বিমানটিকে ভূপাতিত করার দাবি করে। কিন্তু মিশর সরকার এখন পর্যন্ত দায়েশের দাবি মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

You Might Also Like