পরকীয়ার টানে স্বামীকে পাগল বানিয়ে বাড়ি দখলের অভিযোগ

রাজধানীর বাড্ডায় প্রকৌশলীর ৬ তলা বাড়িসহ সম্পদ দখলের জন্য পরকীয়া প্রেমিকের সহযোগিতায় তাকে পাগল বানানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার সকালে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন কার্যালয়ে প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল মান্নান এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন। সংবাদ সম্মেলনে তার মা আলতিমা বেগম উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, রাজধানীর উত্তর বাড্ডার ৩৩৯ নম্বর ময়নারটেকে ৬ তলা বাড়ি নির্মাণ করে স্ত্রী গুলশান আরা ফেরদৌসী লতাকে নিয়ে সংসার করতে ছিলাম। একপর্যায়ে জতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিউনিট ও হাসপপাতালের অধ্যাপক ডাঃ আবুল কাশেম মোহাম্মদ খালিকুজ্জামানের সাথে আমার স্ত্রীর পরকীয়ার সম্পর্ক জানতে পারি। এসময় আমার স্ত্রী লতা ও খালিকুজ্জামান আমার বাড়িসহ সম্পদ দখলের জন্য আমাকে পাগল হিসেবে মিথ্যা ব্যবস্থাপত্র প্রদান করেন। একপর্যায়ে তারা আমাকে বাড়ি থেকে জোরপূর্বক সন্ত্রাসীদের সহযোগিতায় তুলে নিয়ে মানসিক হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে সেখান থেকে চলে আসলে পুলিশের সহযোগিতায় বাসা থেকে ধরে নিয়ে পুনরায় আমাকে হাসপাতালে ভর্তি রাখেন। এরপর খালেকুজ্জামান আমাকে অপচিকিৎসা দিতে থাকেন।

পরে খবর পেয়ে আমার মা ও ভাই পুলিশের সহযোগিতায় উক্ত হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করেন। পরে আমি আমাার স্ত্রী গুলশান আরা ফেদৌসী লতাকে তালাক প্রদান করি। একপর্যায়ে তারা আমাকে পাগল বলে প্রচার করতে থাকে। পরে জাতীয় মানসিক হাসপাতালে আমার মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য আবেদন করি। ফলে সেখানে বোর্ড গঠন করে সেখানে আমাকে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দেন। এরপর হাসপাতালে ভর্তি হই।

এরপর খালেকুজ্জামান ও আমার স্ত্রী লতা সন্ত্রাসীদের সহযোগিতায় আমাকে হাসপাতাল থেকে অপহরণের চেষ্টা করেন। এসময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের বাঁধার মুখে আমি রক্ষা পাই।

এরপর ২০১৪ সালের ১৯ জুলাই আমাকে মেডিকেল বোর্ডের সামনে উপস্থিত করা হয়। সেখানে বোর্ড আমাকে পরিপূর্ণ সুস্থ হিসেবে রিপোর্ট দেন।

আব্দুল মান্নান আরো বলেন, আমার সাবেক স্ত্রী লতা ও প্রফেসার খালেকুজ্জামান আমার বাড়িসহ সম্পাদক আত্মসাত করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে আসছেন এবং আমাকে জীবননাশের হুমকি দিচ্ছেন। এ অবস্থায় আমি প্রধানমন্ত্রীসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা কামনা করছি।

You Might Also Like