স্পিড ব্রেকারের দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ

স্পিড ব্রেকারের দাবিতে রাজধানীর কালশী এলাকায় রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষোভ করছেন স্থানীয়রা। কালশীতে গতকাল বাসচাপায় শারমিন আক্তার নামে এক শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর তাৎক্ষণিক সড়ক অবরোধ করে রাখে এলাকাবাসী।

এরপর আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পুনরায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে তারা।

ক্যান্টনমেন্ট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রিয়াদ আহমেদ গণমাধ্যমকে জানান, স্পিড ব্রেকারের দাবিতে সড়কে অবস্থান নিয়েছে স্থানীয়রা।

পুলিশের সহকারী কমিশনার (এসি, ক্যান্টনমেন্ট জোন) কুদরত-ই-খুদা জানান, বুধবার দ্রুতগতির যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় আহত হন ১৮ বছর বয়সী এক শিক্ষার্থী। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। ওই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক কালশী সড়কটি অবরোধ করে স্থানীয়রা। প্রায় দুই ঘণ্টা ওই সড়ক দিয়ে যান চলাচল বন্ধ থাকার পর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তা স্বাভাবিক হয়।

ক্যান্টনমেন্ট থানার এসআই মেজবাউল হক জানান, ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজ থেকে শারমিন এবার এইচএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছিলেন। সরকারি তিতুমীর কলেজের অনার্সে ভর্তি পরীক্ষার ফরম জমা দিয়ে গতকাল সন্ধ্যায় ক্যান্টনমেন্টের মানিকদির বাসায় ফেরার পথে দুর্ঘটনায় শিকার হন তিনি। শারমিনের বাসা পশ্চিম মানিকদিতে। গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়।

কালশীর স্থানীয় বাসিন্দা রাসেল আশিক জানান, এ সড়কে বাসগুলো বেপরোয়াভাবে চলাচল করে। সড়কে স্পিড ব্রেকার না থাকায় মানুষ ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হয়। দুর্ঘটনা রোধে এ সড়কে স্পিড ব্রেকার প্রয়োজন।

You Might Also Like