কূপ থেকে সেই শিশুর লাশ উদ্ধার

আশুলিয়ায় চার ঘণ্টা পর গভীর কূপ থেকে শিশু ইয়াসিনের (৭) মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। উদ্ধারকাজে স্থানীয়রা ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতা করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটার দিকে বাড়ির পাশের একটি খালি জায়গায় বন্ধুদের সঙ্গে খেলতে গিয়ে প্রায় ৩০ ফিট গভীর কূপে পড়ে যায় শিশুটি। খবর পেয়ে ডিইপিজেডের ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটিকে উদ্ধারের অভিযান শুরু করে।

ইয়াছিন কিশোরগঞ্জের কুনিয়ারচর এলাকার দক্ষিণ ফালুয়া গ্রামের জসিম উদ্দিনের ছেলে।

শিশুর বাবা জানান, সে তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আশুলিয়ার দক্ষিণ ভাদাইল এলাকার হাবিবুর রহমানের বাড়িতে ভাড়া থাকেন। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে তার ছেলে বাড়ির পাশে বন্ধুদের সঙ্গে খেলা করছিল। এ সময় হঠাৎ করেই জহির উদ্দিনের বাড়ির একটি খোলা কূপে পড়ে যায় শিশুটি। পরে খবর পেয়ে আশুলিয়া ডিইপিজেডের ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। স্থানীয়দের সহযোগিতায় প্রায় চার ঘণ্টা পর সন্ধ্যা সোয়া ছয়টার দিকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

এ ব্যাপারে আশুলিয়ার ডিইপিজেডের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আব্দুল হামিদ বলেন, কূপটির গভীরতা প্রায় ৩০ ফিট ছিল। এ ছাড়াও কূপের ভেতরে পানি জমে থাকায় শিশুটিকে উদ্ধারে বিলম্ব হয়েছে। প্রায় এক ঘণ্টা সময় পানি নিষ্কাশনের পর শিশুটি লাশ উদ্ধার করতে সক্ষম হন তারা।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিন কাদির বলেন, শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়াও কূপটি অরক্ষিত রাখার কারণে বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধের ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

এর আগে গতবছরের ২৬ ডিসেম্বর রাজধানীর খিলগাঁও-শাহজাহানপুর কলোনি মাঠের পাশে ওয়াসার খনন করা প্রায় ৪০০ ফিট গভীর কূপে পড়ে যায় জিহাদ নামের এক শিশু। ২৪ ঘণ্টা ধরে চেষ্টা করে অবশেষে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল।

You Might Also Like