গাংনীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, কলেজ ছাত্র আটক

মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলায় গাঁড়াডোব গ্রামে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করেছে ।

অভিযুক্ত শুভ হোসেন গাঁড়াডোব গ্রামের আনারুল ইসলামের ছেলে। সে বাঁশবাড়িয়া বিজনেস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

বুধবার রাত ৮টার দিকে বাড়ির পিছনে টিউবওয়েলে পানি নিতে গেলে শুভ ও তার বন্ধু সজল, সাগর, সেলিম ও বাবুল তার মুখ বেঁধে তুলে নিয়ে যায়। পরে বাড়ির অদূরে একটি ইটভাটার পাশে শুভ তাকে ধর্ষণ করে।

স্কুলছাত্রীর মা কহিনুর বেগম বলেন, বাড়ির পাশে অসুস্থ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করি।

এ ঘটনায় রাতেই অভিযান চালিয়ে বাবুল আক্তার (১৮) নামে শুভর এক সহযোগীকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা।

আটক বাবুল আক্তার উপজেলার গাঁড়াডোব গ্রামের পোড়াপাড়া এলাকার আবু বক্করের ছেলে। তিনি মেহেরপুর সরকারি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র।

মেয়ের কাছ থেকে ঘটনা শুনে র‌্যাব ৬ গাংনী ক্যাম্পে খবর দিলে র‌্যাবের একটি টিম বাবুলকে বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আটক করে গাংনী থানায় সোপর্দ করে

গাংনী থানার সেকেন্ড অফিসার মনিরুজ্জামান জানান, ধর্ষিতাকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানায় নেয়া হয়েছে।

স্কুলছাত্রীর কাছ থেকে ঘটনার বিবরণ শোনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার তার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হবে। এছাড়া, এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে।

গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত চিকিৎসক হাসিবুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে।

You Might Also Like