‘আইএস উত্থান ঠেকাতে বাংলাদেশের পাশে আছে যুক্তরাষ্ট্র’

বাংলাদেশে ‘আইএস-এর উত্থান’ ঠেকাতে একসঙ্গে কাজ করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট।
এক সপ্তাহের মধ্যে বাংলাদেশে দুই বিদেশি নাগরিক খুনের ঘটনায় মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস-এর দায় স্বীকারের খবর আসার প্রেক্ষাপটে বার্নিকাটের এই বক্তব্য এল।
বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, দুই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আইএস এর জড়িত থাকার কোনো প্রমাণ এখনো মেলেনি। বাংলাদেশে আইএস-এর মত কোনো জঙ্গি সংগঠনের তৎপরতা নেই বলেও ইতোমধ্যে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সোমবার ঢাকায় কূটনৈতিক প্রতিবেদকদের সংগঠন ডিক্যাবের সঙ্গে এক মতবিনিময়ে মিার্কিন রাষ্ট্রদূত সহিংস উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ঢাকা ও ওয়াশিংটনের যৌথ প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার কথা বলেন।
তিনি বলেন, “বাংলাদেশে আইএস-এর উত্থান ঠেকাতে যা দরকার তা আমাদের আছে।”
বার্নিকাট বলেন, এমন একজন প্রধানমন্ত্রী এখন বাংলাদেশে রয়েছেন, যিনি সন্ত্রাসবাদের বিষয়ে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করেছেন।
“সন্ত্রাসবাদ ও সহিংস মৌলবাদ ঠেকাতে যে সক্ষমতা, অভিজ্ঞতা ও ঐকান্তিকতা প্রয়োজন, বহু বছরের অংশীদারিত্বের মধ্য দিয়ে আমরা তা অর্জন করেছি।”
সন্ত্রাসবাদকে একটি ‘বৈশ্বিক সমস্যা’ হিসেবে বর্ণনা করে বার্নিকাট বৈশ্বিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকেই এ বিষয়টি সামাল দেওয়ার উপর গুরুত্ব দেন।
“আর আমাদের দুই দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়ে আমরা দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।”

You Might Also Like