‘বিয়ে নয়, শুধু ক্রিকেট নিয়ে ভাবছি’

‘মাটি পুড়ে খাঁটি হয়।’ মানুষ খাঁটি হয় জীবনের কঠিন মুহূর্তগুলো পাড়ি দিয়ে। জাতীয় দলের পেসার রুবেল হোসেনের বেলায় অনেকটাই সে রকম। বিতর্ক তাকে করেছে আরও দৃঢ়, আরও সংকল্পবদ্ধ। ক্রিকেট ছাড়া এখন তার ভাবনা কি? না, অন্যসব কিছুই যেন তার কাছে তুচ্ছ। কারণ, যে ক্রিকেট তাকে পুনর্জন্ম দিয়েছে, সেটি ছাড়া অন্য কোন কিছু নিয়ে তার ভাববার সময় নেই। তার বদলে যাওয়া জীবন ও ক্রিকেট নিয়ে কিছু স্বপ্নের কথা পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল।
প্রশ্ন: বোলিং রেখে ব্যাটিং অনুশীলন করলেন কেমন লাগছে?
রুবেল হোসেন: বোলারদের ব্যাটিং নিয়ে কাজ করানো হচ্ছে। এটি খুবই ভাল একটা উদ্যোগ। এ রকম কাজ আগেও করা হয়েছে। তবে এবার বিশেষভাবে গুরুত্ব দিয়েছেন আমাদের প্রধান কোচ হাথুরুসিংহে। এখন বাবুল স্যার আমাদের ব্যাটিং নিয়ে কাজ করছেন। এতে করে আমরা শেষের দিকে এসে কোন সেট ব্যাটসম্যানকে সঙ্গ দিতে পারবো ভালভাবে। তাই আমাদের ব্যাটিংটারও উন্নতি প্রয়োজন। দলের জন্য বোলিংয়ের সঙ্গে ব্যাটিংয়ে অবদান রাখতে পারলে সেটি আমাদেরও ভাল লাগবে।
প্রশ্ন: টেস্ট দলে থাকতে পারছেন না, এটি কতটা হতাশার?
রুবেল: আমি আসলে জাতীয় দলের হয়ে শেষ চারটি টেস্ট খেলতে পারিনি। হতাশ ঠিক বলবো না, তবে আমি খেলতে চাই। টেস্ট হলো মর্যাদার খেলা এখানে নিজেকে ভালভাবে প্রমাণ করার সুযোগ থাকে।
প্রশ্ন: কিন্তু ওয়ানডের তুলনায় আপনারতো টেস্টে বোলিং গড় তেমন ভাল নাৃ
রুবেল: এটি সত্যি যে, আমাদের ওয়ানডের বোলিংয়ের তুলনায় টেস্টের বোলিং তেমন ভাল না। কিন্তু আমি এখনও চেষ্টা করে যাচ্ছি যে, নিজের উন্নতি করতে পারি। টেস্টেও ভাল বল করতে পারি। আমার আসলে ক্রিকেটের সব ফরমেটেই চেষ্টা থাকে ভাল করার। বিশেষ করে টেস্টে যেন ভাল করতে পারি এজন্য কোচদের সঙ্গে কাজও করছি।
প্রশ্ন: টেস্টে নিজেকে মানিয়ে নিতে কি কষ্ট হচ্ছে?
রুবেল: কষ্ট ঠিক বলবো না, আসলে ওয়ানডের তুলনায় টেস্টে অনেক বেশি বল করতে হয়। আর আমার বেশির ভাগ টেস্টই বাংলাদেশে খেলা হয়েছে। এখানে পেস বোলারদের উইকেট পাওয়া খুব কঠিন। কিন্তু আমি এটি অযুহাত হিসেবে দাঁড় করাতে চাই না। এই জায়গাতে নিজের উন্নতির অনেক প্রয়োজন বলে মনে করি। আরেকটি বিষয় হলো- আমি ওয়ানডে খেলি বা টেস্ট, মাঠে নামলে আমার চেষ্টা থাকে নিজের সেরাটা দেয়ার। আমি টেস্টে স্থায়ীভাবে খেলতে চাই। এজন্য যতটা সম্ভব কঠিন পরিশ্রম করছি যেন টেস্টে আমার অ্যাভারেজটা ভাল করতে পারি।
প্রশ্ন: অনেক কঠিন সময় গেছে- এখন কেমন কাটছে জীবন?
রুবেল: আমি আসলে এখন আর ক্রিকেট ছাড়া অন্য কোনকিছু নিয়েই ভাবি না। আমি শুধু ক্রিকেটটাই ইনজয় করি। আমার ক্রিকেট নিয়ে জীবন খুব ভালভাবে কাটছে। আর সামনে বাংলাদেশে অনেক ক্রিকেট খেলা আছে। অস্ট্রেলিয়া আসবে, বিপিএল আছে, এশিয়া কাপ আছে টি- টোয়েন্টি বিশ্বকাপও আছে। আমি সেগুলো নিয়েই ভাবছি।
প্রশ্ন: বিয়ে করছেন শুনলামৃ
রুবেল: বিয়ে মানুষের জীবনে খুব বড় একটা বিষয়। আমি এখনও এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিচ্ছি না। আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি আগামী বছর বিয়ে করার। আমি জানি না অনেকেই দেখছি আমার বিয়ের কথা বলছেন, আসলে সে রকম কিছুই হয়নি।
প্রশ্ন: আপনি মালিঙ্গার মতো বোলিং করতেন, এখনও কি সেই স্টাইল ধরে রাখতে পেরেছেন?
রুবেল: না, আমার পক্ষে সেটি সম্ভব নয়। বাংলাদেশে অনেক কোচ এসেছেন তাদের সঙ্গে আমাকে অনেক কাজ করতে হয়েছে। এরপর ইনজুরিতো ছিলই। সব মিলিয়ে আমি আর মালিঙ্গার স্টাইলে বোলিং ধরে রাখতে পারিনি। এখন যে স্টাইলে বল করি সেটাও খারাপ নয়।
প্রশ্ন: ব্যাটসম্যানদের বিরুদ্ধে আপনার মূল অস্ত্র কি?
রুবেল: আমি জোরে আর গুড লেšে’ বল করি। এটাই আমার অস্ত্র।
প্রশ্ন: মুস্তাফিজ, শহীদদের কী প্রতিদ্বন্দ্বী নাকি অনুপ্রেরণা ভাবেন?
রুবেল: আমি কাউকেই আমার প্রবিদ্বন্দ্বী ভাবি না। ওরা ভাল বল করছে। বিশেষ করে মুস্তাফিজ। অবশ্যই ওদের ভাল করাটা আমার জন্য অনুপ্রেরণা। আমিও চাই ওদের মতো নিজেকে প্রমাণ করতে।
প্রশ্ন: জীবনে অনেক কিছু বদলে গেছে কি?
রুবেল: মনে হয় না খুব বড় কোন পরিবর্তন হয়েছে। শুধু আগের তুলনায় এখন ক্রিকেটটাই আমার কাছে আরও বেশি বড় হয়েছে। এখনও মানুষ আমাকে ভালবাসে। আগেও ভালবাসতো।
প্রশ্ন: অনেক কঠিন পরিশ্রম করছেন, খাওয়ার তালিকায় কোন পরিবর্তন?
রুবেল: না, না, আমি আগের মতোই খাই। বিশেষ করে গরুর মাংস আমার খুব ভাল লাগে। এটি আমি পরিবর্তন করতেও পারবো না।
প্রশ্ন: সবচেয়ে বেশি ভাল লাগে কি?
রুবেল: মায়ের হাতের রান্না আমার সব চেয়ে বেশি ভাল লাগে। আমি আসলে বাইরের চেয়ে বাসার খাবারই খেতে পছন্দ করি।
প্রশ্ন: নিজেকে কোথায় দেখতে চান?
রুবেল: অবশ্যই একজন ভাল ক্রিকেটার হিসেবে নিজেকে দেখতে চাই।

You Might Also Like