ভারতে শেয়ার ও মুদ্রা বাজারে ব্যাপক ধস, ৭ লাখ কোটি টাকা ক্ষতি

ভারতে শেয়ার ও মুদ্রা বাজারে ব্যাপক ধস নামায় লগ্নিকারীদের মধ্যে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

সোমবার মুম্বাই শেয়ার বাজারের প্রধান সূচক ১৬২৪.৫১ পয়েন্ট পড়ে যায়। শেয়ার বাজারের পতনে সাত লাখ কোটি টাকা হারাতে হয় লগ্নিকারীদের। শেয়ার বাজারে সবচেয়ে বড় পতনের মধ্যে সাতটিই ঘটেছে সোমবার। গত সাত বছরের মধ্যে শেয়ার সূচকে একদিনে এত বড় পতন হয়নি। ডলারের নিরিখে ভারতীয় টাকার দাম কমে ৬৬ টাকা ৬৫ পয়সা হয়েছে।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি এবং অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তারা শেয়ার বাজারে ব্যাপক ধস এবং অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনা করেন। পরে অরুণ জেটলি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী দেশের অর্থ ব্যবস্থা আরো মজবুত করার জন্য পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছেন।’ জেটলি আরো বলেন, ‘ঘরোয়া অর্থনীতি স্থিতিশীল রয়েছে, যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে সেটি বাইরের কারণে হয়েছে।’

ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর রঘুরাম রাজন দেশের শিল্পপতি, আমদানিকারী এবং বিনিয়োগকারীদের আশ্বস্ত করে বলেছেন, ‘ভারতের অর্থনৈতিক বুনিয়াদ যথেষ্ট মজবুত এবং মুদ্রা বাজারে অস্থিরতা মোকাবিলা করার মতো বৈদেশিক মুদ্রার সঞ্চয় রয়েছে। প্রয়োজনে সেই সঞ্চয় ভাঙানো হবে।’

জেটলি এবং রাজন এসব কথা বললেও কংগ্রেস মুখপাত্র আর এস সুরজেওয়ালা অবশ্য কেন্দ্র সরকারকে তীব্র কটাক্ষ করেছে। তিনি বলেন, ‘টাকার দর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বয়স ৬৪ পেরিয়ে গেছে, অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির বয়সও ৬২ পেরিয়ে গেছে, এবার কি তবে এল কে আদবানীর বয়স ৮৭ বছরও পেরিয়ে যাবে?’

কংগ্রেস মুখপাত্র অজয় কুমার বলেন, ‘এই সরকার প্রচার সর্বস্ব। আর্থিক বৃদ্ধি হচ্ছে না, কর্মসংস্থান নেই। অথচ সরকারের কোনো হেলদোল নেই। উল্টে পরিস্থিতি খারাপের জন্য বিদেশের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে।’

সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি প্রশ্ন তুলে বলেছেন, ‘আচ্ছে দিন’ (সুদিন) কোথায় গেল? সাধারণ মানুষের সমস্যা নিয়ে মোদি সরকারের কোনো মাথা ব্যাথা নেই। কেবল প্রচারেই ব্যস্ত প্রধানমন্ত্রী।’

সীতারাম ইয়েচুরি আরো বলেন, ‘মানুষের ঘাড়ে ক্রমশ বোঝা বাড়ানোর পাশাপাশি সাম্প্রদায়িক মেরুকরণে উসকানি দিচ্ছে মোদি সরকার। হিন্দুত্ব সন্ত্রাসের তদন্তের ব্যাপারেও এই সরকারের নরম মনোভাব।’ ‘সন্ত্রাসবাদী কাজকর্ম বন্ধ করতে সরকার সাম্প্রদায়িক রঙ দেখছে’ বলেও জানিয়েছেন সীতারাম ইয়েচুরি।

এদিকে, বিজেপি পরিচালিত এনডিএ সরকারের আমলে ‘আচ্ছে দিন’ আসার আশা অনেকটাই ফিকে হয়ে গেছে বণিক মহলে। বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে এমনকি গত ছয় মাস ধরেও দেশের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হয়নি বলে বণিকসভা ‘ফিকি’র ‘দ্য ফিকি বিজনেস কনফিডেন্স পোল’ শীর্ষক সাম্প্রতিক সমীক্ষায় উঠে এসেছে। এর ফলে ক্রেতা চাহিদা মার খাওয়ার পাশাপাশি দেশের শিল্পসংস্থাগুলোকে তার কুফল ভুগতে হয়েছে বলে বণিকসভা সূত্রে খবর।

You Might Also Like