ওলামা লীগের নেতা হেলালী প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে আহত

সরকারসমর্থক আওয়ামী ওলামা লীগের একাংশের সভাপতি ইলিয়াস হোসাইন বিন হেলালী (৫০) প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের দক্ষিণ গেইট দিয়ে বঙ্গুবন্ধু এভিনিউয়ে যেতে ছিলেন। এসময় কয়েকজন দুর্বৃত্ত তাকে ঘিরে ধরেন। একপর্যায়ে একজন হেলালীর ওপর হামলা চালিয়ে তাকে ধারালো অস্ত্র তার পেছন থেকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এতে তার ঘাড়ে গুরুতর জখমপ্রাপ্ত হন। ঘটনার পর আহত হেলালীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে সন্দেহভাজন হিসেবে এক যুবককে পুলিশ আটক করে। পল্টন থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) শরীফ এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

ওলামা লীগের কর্মীরা জানান, শুক্রবার বায়তুল মোকাররমে জুমার নামাজ শেষে দক্ষিণ গেটের ফটক দিয়ে বেরিয়ে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ২১আগস্ট গ্রেনেড হামলার স্মরণ অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন হেলালী। এ সময় তার ওপর হামলা চালানো হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আওয়ামী ওলামা লীগের দুটি অংশ দীর্ঘদিন ধরেই আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের ঠিকানা ব্যবহার করে পৃথকভাবে দলের বিভিন্ন কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। এর একটি অংশের নেতৃত্বে আছেন ইলিয়াস হোসাইন বিন হেলালী ও মো. দেলোয়ার হোসেন। আর অন্য অংশটির সভাপতি আক্তার হোসেন সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান।

মৗলবাদীদের পক্ষে বক্তব্য রাখার কারণে ওলামা লীগের এই অংশের নেতাদের পেছনে হেফাজতে ইসলাম ও জামায়াতে ইসলামীর মদদ থাকার অভিযোগ করে আসছিল হেলালীর অংশ।

এর আগে হেলালী অভিযোগ করে আসছিলেন যে, আওয়ামী ওলামা লীগকে হেয় করতে দলের নাম ব্যবহার করে কিছু হেফাজতে ইসলামের অনুপ্রবেশকারী দলের ভাবমুর্তি নষ্ট করছে। এরা মূলত জঙ্গি, এরা হেফাজতের টাকায় সরকারবিরোধী কমর্কান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।

You Might Also Like