মহাশূন্যে যেতে লিফট!

এ কথা কখনো কখনো শিশুর মাথায়ও খেলে- মহাশূন্যে যেতে রকেটের পেছনে এত অর্থ ঢালার দরকার কী; একটি উঁচু লিফট বানালেই তো হয়! ওই লিফটে চড়ে নভোচারীরা স্ট্র্যাটোস্ফিয়ার (ভূপৃষ্ঠের ওপরের ১০ থেকে ৬০ কিলোমিটারের মধ্যবর্তী শূন্যস্থান) পর্যন্ত চলে যাবেন। অবশেষে এ চিন্তায় অনেক দূর এগিয়ে গেছে ‘টোঠ টেকনোলজি’ নামে কানাডার একটি প্রতিষ্ঠান। তারা ১২ মাইল উঁচু একটি লিফট বানানোর পরিকল্পনা করেছে। আর এ লিফটে চড়ে নভোচারী কিংবা প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম ১২ মাইল ওপরে তোলা যাবে।
প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জানানো নয়, কোনো মহাকাশযান কিংবা নভোচারীকে একটি নির্দিষ্ট দূরত্ব পর্যন্ত পৌঁছে দিতে রকেট ব্যবহৃত হয়। এতে প্রচুর জ্বালানি খরচ লাগে। কিন্তু তাদের পরিকল্পিত লিফটে এত খরচ পড়বে না। চিন্তাটি প্রথম মাথায় আসে ড. ব্রেনডানের। তিনি বলেন, ‘ওই ইলেকট্রিক লিফটের মাধ্যমে নভোচারীরা ১২ মাইল (২০ কিলোমিটার) ওপরে উঠতে পারবেন। লিফটের জন্য যে টাওয়ার বানানো হবে, তার ওপরে মহাকাশ বিমানের জন্য উড্ডয়ন ও অবতরণের ব্যবস্থা থাকবে। এতে করে মহাকাশ বিমান প্রয়োজনীয় জ্বালানি কিংবা রসদ নিয়ে ফের কক্ষপথে ফিরতে পারবে।’ বর্তমানে এ লিফটের সম্ভাব্য নানা প্রতিবন্ধকতা নিয়ে গবেষণা চলছে।
প্রসঙ্গত, বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু অট্টালিকা সংযুক্ত আরব আমিরাতের বুর্জ খলিফার চেয়েও পরিকল্পিত লিফটের উ”চতা হবে ২০ গুণ বেশি।

You Might Also Like