মাতৃগর্ভে শিশু গুলিবিদ্ধ: সেন সুমন রিমান্ডে

মাগুরা মাগুরায় যুবলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে মায়ের গর্ভে শিশু গুলিবিদ্ধ ও একজন নিহতের মামলায় জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সেন সুমনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের হেফাজতে নেওয়ার আদেশ দিয়েছে আদালত।

রোববার মাগুরার বিচারিক হাকিম ফারহা মামুন এ আদেশ দেন।

ডিবি পুলিশের ওসি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ইমাউল হক জানান, গত ৪ অগাস্ট মামলার প্রধান আসামি সেন সুমনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে হাজির করে ১০ দিনের হেফাজতের (রিমান্ড) আবেদন করা হয়।

“ওইদিন বিচারক রিমান্ড শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন রোববার। শুনানি শেষে ৭ দিন রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।”

গত ২৩ জুলাই মাগুরা শহরের দোয়ারপাড় এলাকায় অধিপত্য বিস্তার নিয়ে যুবলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় গুলিতে নিহত হন স্থানীয় মমিন ভূইয়া। গর্ভস্থ শিশুসহ গুলিবিদ্ধ হন গৃহবধূ নাজমা বেগম।

ওই ঘটনায় নিহত মমিনের ছেলে রুবেল ২৬ জুলাই মাগুরা সদর থানায় ১৬ জনের নামে হত্যাসহ বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করেন।

এ পর্যন্ত মামলার এজাহারভুক্ত ১৬ আসামির মধ্যে ৬ জন গ্রেপ্তার হয়েছেন। তারা মাগুরা কারাগারে রয়েছেন।

গত ২ অগাস্ট ঢাকার কল্যাণপুর থেকে র‌্যাব সেন সুমনকে গ্রেপ্তার করে।

ওই রাতেই মাগুরার ওয়াপদা এলাকায় ঈগল পরিবহন কাউন্টার থেকে গ্রেপ্তার করা হয় আসামি মাইক্রোবাস চালক নজরুলকে।

পরদিন বাপ্পী ও সাগরকে ঢাকার সাইনবোর্ড এলাকা থেকে মাগুরা ডিবি পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

এর আগে ২৬ জুলাই রাতে ফরিদপুর থেকে মাগুরা ডিবি পুলিশ গ্রেপ্তার করে চা দোকানি সুমন কারিগর ও মুদি ব্যবসায়ী সোবহান কারিগরকে। গত ৫ বুধবার এ দুজনকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।

You Might Also Like