ঝাড়খণ্ডে ডাইনি সন্দেহে ৫ নারীকে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেফতার ৫০

ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যে ডাইনি আখ্যা দিয়ে মা-মেয়েসহ ৫ মহিলাকে নৃশংসভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মান্ডর থানার কজিয়া গ্রামে এ ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ৫০ জন গ্রামবাসীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আজ (শনিবার) সকালে এ ঘটনা জানতে পেরে পুলিশের একটি বড় দল ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। পুলিশ নিহত মহিলাদের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।
এক তথ্য সূত্রে জানা গেছে, ঝাড়খণ্ডে চলতি বছরে ডাইনি অপবাদ দিয়ে ৭৫০ জন নারীকে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, শুক্রবার রাতে গ্রামের যুবকরা পাঁচ মহিলাকে জোর করে তাদের বাড়ি থেকে বের করে এনে লাঠি এবং লোহার রড দিয়ে ব্যাপক মারধর করে। ওই মহিলারা ‘কালা জাদু’ করত বলে তাদের দাবি।

রাঁচি পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) রাজকুমার লাকরা জানান, গ্রামবাসীদের এক গ্রুপ বৈঠক করে এই মহিলাদের হত্যা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। তাদের সন্দেহ ছিল, ওই মহিলারা ডাইনি এবং এদের জন্য গ্রামে অশান্তি সৃষ্টি হচ্ছে।

সংবাদে প্রকাশ, গ্রামে কয়েক মাস আগে চার শিশুর মৃত্যু হয়। গ্রামবাসীদের একাংশের ধারণা ওই মহিলারা ডাইনি হওয়ার জন্য শিশুদের মৃত্যু হয়েছে। এরপর শুক্রবার গভীর রাতে পঞ্চায়েত বসিয়ে ৫ মহিলাকে হত্যা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। হতভাগ্য ওই মহিলাদের বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে নিয়ে গিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে ঘাতকরা। ধৃতরা পুলিশের কাছে হত্যার কথা স্বীকার করেছে।

নিহত মহিলার এক আত্মীয় জানান, গ্রামবাসীরা জোর করে ঘরের দরজা খোলে এবং মহিলাদের এক এক করে বাইরে বের করে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে। হত্যার পর ঘাতকরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে মৃতদেহ তাদের দখলে নেয়।

আজ ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছলে তাদের বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়। পরে অনেক বোঝানোর পর নগ্ন অবস্থায় থাকা ওই মহিলাদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য ট্রাকে করে নিয়ে যেতে সমর্থ হয় পুলিশ। এলাকায় তীব্র উত্তেজনা থাকায় পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাসহ পার্শ্ববর্তী থানার কয়েকশ’ পুলিশ ঘটনাস্থলে ক্যাম্প করে রয়েছে।

You Might Also Like