ভারতে পুলিশ স্টেশনে হামলা : নিহত ১৩, আহত ২০

ভারতের পাঞ্জাবে সন্ত্রাসী হামলায় পুলিশ সুপারসহ ১৩ জন নিহত ও কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে।

আজ (সোমবার) পাঞ্জাবের গুরুদাসপুর থেকে জম্মুগামী বাসে যাত্রীদের ওপর হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। এসময় নিহত হন তিন বাসযাত্রী। বাসটি পাঞ্জাব থেকে জম্মু যাচ্ছিল। পরে অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে দীনানগর থানায় ঢুকে পুলিশ এবং কয়েদিদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় তারা। সেনাবাহিনীর পোশাক পরে এসব সন্ত্রাসী থানায় আক্রমণ চালায়। অতর্কিত হানায় থানার ভেতরে থাকা ছয় পুলিশকর্মীর মৃত্যু হয়। মারা যায় লকআপে থাকা তিন বন্দিও। এছাড়া, লড়াইয়ে মারা যান গুরদাসপুরের পুলিশ সুপার বলজিত্‍ সিং।

সন্ত্রাসীরা একটি গাড়ি হাইজ্যাক করে হামলা চালিয়েছে বলে জানা গেছে। হামলায় ব্যবহৃত গাড়িটিকে উদ্ধার করা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবলা করতে ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনী পৌঁছে অভিযান চালায়। সেনাবাহিনীর সঙ্গে লড়াইয়ে দুই সন্ত্রাসী নিহত হয়।

গুরুদাসপুরে এই হামলার পরে দেশজুড়ে উচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এরইমধ্যে পাঞ্জাব এনএসজি এবং এসএসজি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে সন্ত্রাসীদের মোকাবিলা করছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সেনা এবং সন্ত্রাসীদের মধ্যে গুলির লড়াই চলছে।

ভয়াবহ এই হামলার ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সমস্ত পরিস্থিতির দিকে নজর রেখে চলেছেন। তিনি প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পাররিকরের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ডাকা জরুরি বৈঠকে গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’, বিএসএফসহ সমস্ত উচ্চপদস্থ নিরাপত্তা কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদার করার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ সিং বাদলের সঙ্গে ফোনে এ বিষয়ে কথা বলেছেন। রাজনাথ সিং স্বরাষ্ট্র সচিব এবং অন্য নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেছেন। খুব শিগগিরি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেছেন।

You Might Also Like