মাগুরায় আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, নিহত ১

মাগুরা সদর উপজেলার রুপদহ সুন্দরপুর গ্রামে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নান্নু শেখ (৪৫) নামে এক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৩০ জন। ঘটনাস্থল থেকে আটজনকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। হাসপাতালে ভর্তি আহত আছাদুজ্জামান রাইজিংবিডিকে জানান, এলাকার রাজনৈতিক ও সামাজিক আধিপত্য বিস্তার নিয়ে শত্রুজিৎপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জহুর মোল্লার সঙ্গে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকলাস সমর্থকদের বিরোধ চলে আসছে।

২১ জুলাই অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদের চেয়াম্যান পদে উপনির্বাচন নিয়ে চরম আকার ধারণ করে। জহুর মোল্লা সমর্থকেরা আওয়ামী লীগ প্রার্থী রুস্তম আলীর ঘোড়া প্রতীকে পক্ষে কাজ করেন।

অপরদিকে ইকলাস সমর্থকেরা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবু নাসির বাবলুর আনারাস প্রতীকের পক্ষ নিয়ে নির্বাচনী কাজে অংশ নেন।

নির্বাচন পরবর্তী সময়ে জয়-পরাজয় নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্ঠি হয়। একপর্যায়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে জহুর মোল্লা সমর্থকেরা নান্নু শেখে ওপর হামলা চালিয়ে তাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ও তার সমর্থিত লোকদের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর-লুটপাট চালায়।

এ ঘটনার পর পর উভয় পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় প্রতিপক্ষের হামলা-পাল্টা হামলায় উভয় পক্ষের ৩০ জন আহত হয়। ভাঙচুর লুটপাটের ঘটনা ঘটে ২৫ থেকে ৩০টি বাড়িতে। পুলিশ পরিস্থিতি সামলাতে টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে।

আহতদের মাগুরা হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কিছুক্ষণ পর আহত নান্নু শেখের মৃত্যু হয়।

শত্রুজিৎপুর পুলিশ ফাঁড়ির এসআই শেখ আবু হেনা মিলন রাইজিংবিডিকে জানান, পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বেশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে।

বর্তমানে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরবর্তী সংঘাত এড়াতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

You Might Also Like