দিনমজুর ও বিধবাকে বেঁধে রাতভর নির্যাতন

লালমনিরহাটের হাতিবান্ধা উপজেলার সিঙ্গিমারী গ্রামে কথিত অভিযোগ এনে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক দিন মজুর ও এক বিধবাকে বাঁশঝাড়ে বেঁধে বুধবার রাত ভর মধ্যযুগীয় কায়দায় নিযার্তন করেছে গ্রাম্য মাতবররা।

ওই এলাকার আলিমুদ্দিনের পুত্র রফিকুল ইসলাম ও তফিজুল ইসলাম স্ত্রী শিউলী জানান, বুধবার রাতে রফিকুল পাওনা টাকার জন্য শিউলীর বাড়িতে আসে। এসময় ওই এলাকার লান্টু, সাবেদ, শাহিন ও ফরিদসহ কয়েক জন গ্রাম্য মাতবর পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রফিকুল ও শিউলীর বিরুদ্ধে কথিত দৈহিক মেলামেশার অভিযোগ এনে আটক করেন। পরে তাদের দুইজনকেই দড়ি দিয়ে বাঁশঝাড়ে বেধে রাতভর মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়। নিযার্তনে রফিকুলের চোখের উপরে ফেটে রক্তাত্ব হয়। বিধবা শিউলী অজ্ঞান হয়ে পড়ে যায়।

মায়ের নিযার্তন দেখে শিশু আরিফ এগিয়ে এলে তার উপরও অমানবিক নিযার্তন চালায় ওই মাতবররা। এলাকার লোকজন রফিকুল-শিউলীকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যেতে চায় কিন্তু ওই মাতবররা তাতেও বাধা দেয়।

একাধিক বার যোগাযোগ করা হলেও অভিযুক্ত ওই মাতবরদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সিঙ্গিমারী ইউনিয়ন পরিষদের ৮ ওয়ার্ডের সদস্য ছলিমুদ্দিন এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে রাতেই আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে ছিলাম। তাদের ছেড়ে দিতে বলেছি। কিন্তু ওই এলাকার কয়েকজন মাতবর তাদের ছেড়ে দিতে দেয় নাই।

হাতীবান্ধা থানার ও সি আব্দুল মতিত জানান, আমি ঘটনাটি শুনেছি। অভিযোগ এলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

You Might Also Like