‘ওমরা ভিসা বন্ধে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে’

ওমরা ভিসা বন্ধ হওয়ার পেছনে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে সংসদে জানিয়েছেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান।

দশম সংসদের দ্বিতীয় বাজেট অধিবেশনের প্রশ্নোত্তরপর্বে বুধবার বরিশাল-৫ আসনের সংসদ সদস্য বেগম জেবুন্নেছা আফরোজের টেবিলে উত্থাপিত এক প্রশ্নের উত্তরে সংসদকে ধর্মমন্ত্রী এ কথা জানান।

ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘ওমরা ভিসায় সৌদি আরবে ওমরা করতে গিয়ে বেশকিছু ওমরাযাত্রী বাংলাদেশে প্রত্যাবর্তন না করার অভিযোগে বর্তমানে ওমরা ভিসা বন্ধ রয়েছে। ওমরা ভিসা বন্ধ হওয়ার পেছনে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি ওমরা ভিসা চালু করার জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ওমরা এজেন্সি সৌদি ওমরা এজেন্সির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশের সৌদি দূতাবাসের মাধ্যমে ওমরা ভিসা সংগ্রহপূর্বক ওমরা কার্যক্রম সম্পন্ন করে থাকে। বর্তমানে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ওমরা কার্যক্রম পরিচালিত হয় না বিধায় এতে মন্ত্রণালয়ের কোনো অবহেলা নেই।’

দিদারুল আলমের অপর এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী জানান, ২০১৪ সালের হজ মৌসুমে বাংলাদেশের ৬৭টি হজ এজেন্সির কার্যক্রমের ওপর সৌদি কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বিভিন্ন ত্রুটি ও মন্তব্য সংবলিত একটি প্রতিবেদন পাওয়া গেছে। উক্ত প্রতিবেদনে পরবর্তী ৩০ দিনের মধ্যেই এজেন্সিসমূহকে জবাব প্রদানের জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছিল। পরবর্তীতে এজেন্সিসমূহ কর্তৃক জবাব প্রদান করা হলেও অদ্যাবধি সৌদি কর্তৃপক্ষ কর্তৃক গৃহীত সিদ্ধান্ত/পদক্ষেপ সম্পর্কে মন্ত্রণালয় অবহিত নয়।

বেগম নূর ই হাসনা লিলি চৌধুরীর এক প্রশ্নের উত্তরে ধর্মমন্ত্রী জানান, আসন্ন হজ মৌসুমে বাংলাদেশ থেকে সরকারিভাবে ২ হাজার ৭৫৪ জন হাজী সৌদি আরব গমন করবেন। হাজীদের যাতে কোনো ধরনের সমস্যা না হয় সেদিকে সরকার তৎপর রয়েছে। যেমন- এরই মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনার হাজীদের জন্য সৌদি আরবে বাড়িভাড়া কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়েছে।

You Might Also Like