ভারতের প্রধানমন্ত্রী যিনি হবেন তাকেই ভিসা দেবে আমেরিকা

যিনিই ভারতের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হবেন, তাকেই ভিসা দেবে আমেরিকা৷ ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতে সচেষ্ট মার্কিন প্রসাশন৷ রাষ্ট্রদূত ন্যান্সি পাওয়েলের পদত্যাগ দু’দেশের সম্পর্কে কোনো ফাটল ধরাবে না৷ মঙ্গলবার এ-কথাই জানালেন মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের অতিরিক্ত মুখপাত্র মেরি হার্ফ৷

নরেন্দ্র মোদি ভারতের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হলে, তিনি ভিসা পাবেন কি না, তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছিল নানা মহলে৷ সদ্য পদত্যাগী রাষ্ট্রদূত ন্যান্সি পাওয়েল মোদির সঙ্গে দেখা করার পর মনে করা হয়েছিল, মোদির সম্পর্কে ছুঁতমার্গ কিছুটা কমেছে আমেরিকার৷ কিন্তু, ভিসার প্রসঙ্গে তার পরও কোনো সদুত্তর দেয়নি আমেরিকা৷

মেরি হাফ বলেন, “ভারতবাসী যাকেই তাদের নেতা হিসাবে নির্বাচিত করবেন, তার সঙ্গেই কাজ করতে প্রস্তুত আমরা৷ ভারতে সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে৷ এই সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতেই এই প্রচেষ্টা৷”

মেরিকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, মোদি প্রধানমন্ত্রী হলেও কি তাকে ভিসা দেয়া হবে? উত্তরে মেরি বলেন, “আমরা ভারতের লোকসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে আছি৷ দু’দেশের সম্পর্ক ভাল, খুব খুব ভালো৷ শক্তি, অর্থনীতি, পরিবেশ সংক্রান্ত বিষয় এমনকি, নিরাপত্তাগত দিকেও দু’দেশ একসঙ্গে আরো অনেক কাজ করতে চায়৷”

হার্ফ রাষ্ট্রদূত ন্যান্সি পাওয়েলের পদত্যাগের বিষয়ে বলেন, “দেবযানী খোবড়াগারে বা মোদির সঙ্গে পাওয়েলের বৈঠক, এই বিষয়গুলির সঙ্গে তার পদত্যাগের কোনো যোগ নেই৷ ৩৭ বছরের কর্মজীবন থেকে অবসর চেয়েছেন পাওয়েল৷ এটা পুরোপুরি তার ব্যক্তিগত বিষয়৷ এর সঙ্গে সাম্প্রতিক দু’দেশের মধ্যে ঘটনা, কার্যকলাপের কোনো সম্পর্ক নেই৷”  সূত্র: ওয়েবসাইট

You Might Also Like