দুর্নীতি মামলায় সওজ প্রকৌশলী মালেকের ৭ বছরের জেল

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়েরকৃত মামলায় সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল মালেকের সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো এক বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তিন কোটি ৪০ লাখ টাকা বাজেয়াপ্ত করেছেন আদালত। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তার স্ত্রী আম্বিয়া খাতুনকে এ মামলায় খালাস দিয়েছেন আদালত।

বুধবার বেলা পৌনে ১টায় ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল জজ মো. জহিরুল হক এ আদেশ দেন।

মামলার নথি সূত্রে জানা যায়, আব্দুল মালেক ১৯৭৪ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত সওজে কর্মরত ছিলেন। এ সময়ে তিনি জ্ঞাত বহির্ভূত অর্থে ঢাকার ধানমন্ডি আবাসিক এলাকায় চারটি এবং গুলশানে একটি ফ্ল্যাটের মালিকানা অর্জন করেন। এছাড়া পল্লবীতে একটি পাঁচ তলা বাড়িসহ ছয় কোটি ৬১ লাখ ১৮ হাজার ৪৯৯ টাকা সঞ্চয় করেন। যার কোনো বৈধ আয়ের উৎস দেখাতে পারেননি তিনি।

২০০৬ সালের ৫ জুন ধানমন্ডি থানায় দুদকের তৎকালীন পরিদর্শক এস এম এম আখতার হামিদ ভূঁঞা বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

২০১১ সালের ১৫ জুন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন হয়। বিচার চলাকালে মামলায় ২০ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

You Might Also Like