ডিবি পরিচয়ে ব্যবসায়ীকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

রাজধানীর পল্লবী থেকে ফজলুল হক করিম নামে এক ব্যবসায়ীকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন তার স্ত্রী তাহমিনা আক্তার বৃষ্টি। তার দাবি, ২৫ জুন বিকাল ৪টায় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে কিছু লোক ফজলুল হক করিমকে তুলে নিয়ে যায়।

আজ বুধবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ছোট হলরুমে সংবাদ সম্মেলনে স্বামীকে ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তাহমিনা আক্তার বৃষ্টি।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ডিবির উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল আলী ও নজরুল ইসলামসহ চারজন গত ২৮ ফেব্রুয়ারি দুপুর পৌনে ৩টায় মাইক্রবাসে তুলে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যান। এক কোটি টাকা দাবি করে তারা আমার স্বামীকে মারধর করলে ১০ লাখ টাকা দিতে রাজি হই।

তাহমিনা আক্তার বলেন, তারা আমার স্বামীর নামে থাকা দুটি ফ্ল্যাট ৩০০ টাকার স্ট্যাম্পে জোর করে লিখিয়ে নেয়। ডিবি আমার স্বামীকে বাস পোড়ানো মামলায় জড়িয়ে কোর্টে চালান দেন। এমনকি বাঁচতে হলে এক কোটি টাকা চাঁদা দিতে হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, ফজলুল হক করিমকে ২০ এপ্রিল হাইকোর্ট জামিন দেয়। জামিন পেয়ে তিনি এ সব ঘটনার প্রতিকার চেয়ে স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের ডিআইজি এবং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ সংসদীয় স্থায়ী কমিটির কাছে আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে অতিরিক্ত ডিআইজি তদন্তের নোটিশ জারি করেন।

তাহমিনা আক্তার বলেন, নোটিশ জারির দিনই আমার স্বামীকে ডিবি আবার তুলে নিয়ে যায়। আজ পর্যন্ত তার কোনো খোঁজ মেলেনি। এ ব্যাপারে পল্লবী থানায় সাধারণ ডায়েরিও করেছি।

এ সময় তিনি স্বামীকে ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র সচিব ও পুলিশের মহাপরিদর্শকের কাছে আবেদন জানান।

সংবাদ সম্মেলনে নিখোঁজ ফজলুল হক করিমের স্ত্রী ছাড়াও তার মেয়ে তানহা হক মিম (১৫), ছেলে তুর্য (০৫) ও ভাগ্নে একরামুল হক উপস্থিত ছিলেন।

You Might Also Like