বিএসএফের আদালতে ফেলানী হত্যার বিচার শুরু হচ্ছে

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) নির্মম হত্যাকা-ের শিকার বাংলাদেশি কিশোরী ফেলানী খাতুন হত্যার পুনর্বিচার শুরু হচ্ছে মঙ্গলবার।

দীর্ঘ তিন মাস মুলতবির পর ভারতের কুচবিহারে বিএসএফের বিশেষ আদালতে এই বিচার আজ সকাল ১০টায় শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বিশেষ আদালতের সোনারী ছাউনীতে বিএসএফের আধিকারী সিপি ত্রিবেদীর নেতৃত্বে ৫ সদস্যের বিচারিক প্যানেল বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।

এর আগে চার মাস মুলতবি থাকার পর গত ২৫ মার্চ পুনর্বিচারকাজ শুরু হয়। তবে সেদিন বিএসএফের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর অসুস্থ থাকায় ৩০ জুন পর্যন্ত আদালতের কার্যক্রম মুলতবি করা হয়।

উল্লখ্য, ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি কুড়িগ্রাম ফুলবাড়ীর অনন্তপুর সীমান্তে কাটাতারের বেড়া পার হওয়ার সময় বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষের গুলিতে নিহত হয় বাংলাদেশি কিশোরী ফেলানী খাতুন। এরপর তার মরদেহ ওই কাটাতারে ঝুলিয়ে রাখে বিএসএফ।

এ হত্যাকাণ্ড দেশ-বিদেশের সমালোচনার ঝড় উঠলে ২০১৩ সালের ১৩ আগস্ট বিএসএফের বিশেষ আদালতে ফেলানী হত্যার বিচারকাজ শুরু হয়।

২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর অভিযুক্ত বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষকে বেকসুর খালাস দেয় কুচবিহারের ওই বিশেষ আদালত।

You Might Also Like