তিউনিসিয়ায় হামলাকারীর ছবি প্রকাশ করল আইএস

তিউনিসিয়ার পর্যটন নগরী সউসেতে হামলায় অংশ নেওয়া একজনের ছবি প্রকাশ করেছে ইরাক ও সিরিয়াভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক (আইএস)।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি বার্তাসহ আবু ইয়াহইয়া কায়রাওয়ানি নামের ওই ব্যক্তির ছবি প্রকাশ করা হয় বলে শনিবার জানানো হয় আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে। তার জেহাদি নাম সেইফেদ্দিন রেজগুই বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শুক্রবার উত্তর আফ্রিকার দেশ তিউনিসিয়ার পর্যটন নগরী সউসেতে দু’টি হোটেলে হামলা চালায় দুই বন্দুকধারী। এ হামলায় অন্তত ৩৯ জন নিহত হন। আহত হন আরও ৩৬ জন। পুলিশের পাল্টা জবাবে নিহত হন এক বন্দুকধারী।

হামলার কয়েক ঘণ্টা পরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা প্রথম বার্তায় এর দায় স্বীকার করে নেয় আইএস। এরপর অপর এক বার্তায় পুলিশের গুলিতে নিহত হামলাকারীর ছবি প্রকাশ করে জঙ্গি সংগঠনটি।

আইএসের পোস্ট করা ছবিতে দেখা যায়, সাদা টি-শার্ট পরে ওই তরুন দুই পাশে দুই অ্যাসল্ট রাইফেল নিয়ে পোঁজ দিচ্ছেন।

ছবির সঙ্গে পোস্ট করা বার্তায় বলা হয়, আমাদের ভাই, খেলাফতের বীর সেনা আবু ইয়াহইয়া আল কায়রাওয়ানি তার লক্ষ্যে পৌঁছে গেছেন।

তবে যার ছবি পোস্ট করা হয়েছে, সেই সউসেতে হামলায় ছিল কি না, সে বিষয়ে এখন পর্যন্ত নিশ্চিত হতে পারেনি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। হামলায় অংশ নেওয়া অপর জঙ্গি পালিয়ে যেতে সামর্থ্য হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, আবু ইয়াহইয়াকে সাগরপাড়ে রোদ পোহানো ও গোসলরত পর্যটকদের সঙ্গে হাস্যরস করতে দেখা গেছে হামলার দিন দুপুরে। তার আচরণ পর্যটকসুলভ ছিল।

তবে এভাবে হাস্যরসের মাধ্যমে ইয়াহইয়া আসলে তার টার্গেট নির্বাচন করছিলেন বলেই সন্দেহ প্রত্যক্ষদর্শীদের।

এক প্রত্যক্ষদর্শী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তার মূল টার্গেট ছিল ব্রিটিশ পর্যটকরা। হামলার সময় কিছু পর্যটককে সে সামনে থেকে সরে যেতে বলছিল। বেছে বেছে ফ্রান্স ও ব্রিটিশ নাগরিকদেরকেই সে গুলি করছিল।

এদিকে, হামলার ঘটনার পর তিউনিসিয়া ব্যাপক সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান শুরু করতে চলেছে সরকার। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় প্রধানমন্ত্রী হাবিব এসাদি জানিয়েছেন, এক সপ্তাহের মধ্যে বাইরে থেকে পরিচালিত তিউনিসিয়ায় জঙ্গি ইন্ধন দেওয়া সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হবে।

এক সংবাদসম্মেলনে কথা বলার সময় তিনি আরও বলেন, জঙ্গি দমনে দেশে সেনাবাহিনী নামানো হবে।

You Might Also Like